ভাইরাল

গল্প হলেও সত্যি! মধ্যপ্রদেশের এক বৃদ্ধের মাথায় গজালো ৪ ইঞ্চির শিং, বৃদ্ধকে নিয়ে যেতে হল হাসপাতালে

ছোটবেলায় আমরা অনেকবার শুনেছি যে কারোর মাথার সঙ্গে মাথায় গুতো লাগলো আরেকবার তাকে গুতো না দিলে নাকি সঙ্গে সঙ্গে মাথা শিং গজায়। ছোটবেলায় এই কথাটি খুবই বিশ্বাস করতাম আমরা। কিন্তু যত বড় হয়েছি ততো বুঝতে শিখেছি এটা একেবারেই অবাস্তব ঘটনা। কিন্তু এবারে সেই গল্পই বাস্তবে পরিণত হল। সম্প্রতি নেটদুনিয়ায় একজন বয়স্ক মানুষের একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে যে ছবিতে শিব বৃদ্ধ মানুষের মাথা ৪ ইঞ্চির একটা লম্বা শিং দেখা গিয়েছে। যা দেখে রীতিমত অবাক হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা।

তবে এবার একেবারে গল্প নয় একদম সত্যি ঘটনা। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের রহলি গ্রামে। যে বৃদ্ধের ছবিটি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছে তার নাম শ্যামলাল যাদব। শ্যামলাল বাবুর বয়স ৭৪। পেশায় এই বৃদ্ধ একজন কৃষক। আর এই বৃদ্ধের মাথায় রয়েছে চার ইঞ্চি লম্বা শিং। আর তার মাথায় এই শিং হয়ে উঠেছিল তার অস্বস্তির কারণ। যার কারণে শেষে বাধ্য হয়েই তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন এবং অপারেশন করার নিজের মাথার এই অদ্ভুত শিং এর।

কিন্তু এখন প্রশ্ন হচ্ছে এরকম অদ্ভুত কান্ড হলো কি করে। সূত্রের খবরে জানা গেছে যে এক অ্যাক্সিডেন্টে আজ থেকে প্রায় ৫ বছর আগে মাথা ফেটে গিয়েছিল শ্যামলাল বাবুর। তারপর সেটি সেরেও যেতে থাকে। কিন্তু তারপর কিছুদিনের মাথায় সেখান থেকে ছোট্ট শিং গজাতে থাকে। প্রথমে নাপিতের কাছে গিয়ে চুল কাটার সময় সেটি চেছে আসছেন কিন্তু তাতে হিতে বিপরীত হয়েছে। কিন্তু এরপরই শিং যখন বাড়াবাড়ি পর্যায়ে চলে আসে তখন মধ্যপ্রদেশের ভাগ্যদয় তীর্থ চিকিৎসালয় হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।

ডাক্তারি ভাষাতেই বৃদ্ধির এই সমস্যাকে বলা হয় ডেভিল হর্ন। এটির আসলে এক ধরনের টিউমার। মানুষের শরীরের চুল ও নখের গঠনকারী প্রোটিন কেরাটিনের মাত্রা যখন অতিরিক্ত বেড়ে যায় তখন এই ধরণের টিউমার দেখা দেয়। আপাতত অপারেশনের পরে শ্যামলাল বাবু সুস্থ রয়েছেন। কিন্তু এই টিউমার আবারো ফিরে আসতে পারে। এর পাকাপাকি সমাধান করতে হলে কেমোথেরাপি বা রেডিয়েশন থেরাপীর সাহায্য নেওয়া যেতে পারে।

Back to top button