ভাইরাল

সুদীপার পোষ্টের জন্য তাকে যেখানে ‘রূপঙ্কর ভার্সান থ্রি’ বলা হচ্ছে সেখানে সুদীপার উত্তর,‘অমিতাভ বচ্চন ট্রোল্ড হচ্ছে সেখানে আমি কে!’ এক হাত নিলেন নেটিজেনরাও

জি বাংলার রান্নাঘরের সঞ্চালিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায় গতকাল থেকে ভয়ঙ্কর রকমভাবে ট্রোল হচ্ছেন। তাকে অহংকারী,দেমাগী ইত্যাদি বলার সাথে সাথে তার মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠা শুরু হয়েছে। কারণ তার মধ্যরাতে করা একটি পোস্ট দেখে নেটিজেনরা সুদীপার প্রতি রীতিমতো রেগে গিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে তিনি ডেলিভারি বয়দের অপমান করেছেন এবং দ্বাররক্ষীদেরকেও অপমান করেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে নিয়ে একটি পোস্ট লেখেন যেখানে একটি বিশেষ খাবার সরবরাহকারী সংস্থার উল্লেখ করে তিনি লেখেন, “আমি শুধু জানতে চাই একজন ডেলিভারি বয় ও ফোন না করে কেন গন্তব্যে পৌঁছতে পারে না? ফোন করে কেন বলেন, আমি আসছি আপনি গেটটা খুলুন। আমি কি দারোয়ান যে গেট খুলবো?” আর এই ঘটনার পরই সবাই রেগে যান।

সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনরা তাকে তুলোধোনা করতে শুরু করেন, অনেকেই সুদীপাকে লিখেছেন, অনেক সময়ই জিপিএসের সমস্যার কারণে সেই সব খাবার সরবরাহকারী ব্যক্তিরা গ্রাহকদের ফোন করেন এটি তাদের কাজেরই অংশ। অনেকে আবার সুদীপাকে জিজ্ঞেস করেন, নিজের বাড়ির দরজা খোলা মানেই কি দারোয়ান হয়ে যাওয়া? আর সবার পক্ষে কি দ্বাররক্ষী নিয়োগ করা সম্ভব?”

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শিল্পী অরিত্র দত্ত বণিক ও সুদিপার পোষ্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন,“ জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও সঞ্চালিকা যাকে লক্ষাধিক মানুষ ফলো করেন। তার কাছ থেকে এই বক্তব্য একেবারে কাম্য ছিল না‌‌। তাও উনি পোস্টটা ডিলিট করেছেন তবে মাথায় রাখবেন পোস্ট সরিয়ে নিলেই মন থেকে অহংকারী মানসিকতা সরে যায় না।”

অন্যদিকে সাধারণ মানুষ সুদিপাকে ট্রোল করে রূপঙ্কর ভার্সন ৩ বলতে শুরু করেন আর কমেন্টে তাকে উপদেশ দেন যে মানুষকে মানুষ বলে সম্মান করুন।

এই সকল সমালোচনার উত্তরে সুদীপা অবশ্য বলেছেন, “আগেকার দিন পোস্টমাস্টারদের কাছে জিপিএস, নেভিগেশন থাকত না, তাও তাঁরা বাড়ি খুঁজে ঠিক চলে আসতেন। এখন ‘অ্যাভয়েড কলিং’ লেখা থাকলেও ডেলিভারি বয়েরা ক্রমাগত ফোন করতে থাকেন– সেই কারণেই নেহাত মজা করে একটি পোস্ট করেছিলাম। অপমান কেন করতে যাব? আমার তো তাঁদের সঙ্গে কোনও শত্রুতা নেই। মানুষ এখন আর্থ সামাজিক কারণে এমন এক সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে যে সামান্য মজা নিতেও ভুলে যাচ্ছে সে। অমিতাভ বচ্চনও ট্রোল্ড হচ্ছেন সেখানে আমি কে?” – এটি দেখে নেটিজেনরা বলছেন, অমিতাভ বচ্চনের প্রসঙ্গ তুললেই সব কিছু লঘু হয়ে যায় না!

Back to top button