ভাইরাল

তৃণমূলের সাংসদ হয়েও নন্দনে জায়গা পায়নি দেব! মজা পেয়েছেন টলিউড তারকা! অভিনেতাকে দেখে মুখ টিপে হাসছেন রাজ- নুসরাত- মিমি! নেট মাধ্যমে শোরগোল সেই ছবি নিয়ে

বড়দিনের ছুটিতে মুক্তি পেয়েছে দেব (Dev)এবং মিঠুন চক্রবর্তী(Mithun Chakrabotry) অভিনীত প্রজাপতি(Projapoti)। তবে শুরুর থেকে এই ছবিতে ঘিরে বিতর্ক ছিল তুঙ্গে। পাশাপাশি দেখা গেছে মমতা শঙ্কর, শ্বেতা ভট্টাচার্যের মতন তারকাদের। প্রসঙ্গত তরুণ মজুমদারের স্মৃতিতে তৈরি হয়েছিল অভিজিৎ সেন পরিচালিত ছবি প্রজাপতি। শহর ছাড়িয়ে দেশের অন্যান্য মাল্টিপ্লেক্সে চরমভাবে সফল প্রজাপতি। প্রত্যেকটি হলে ঝুলেছে হাউসফুল বোর্ড। তবে দেশের মান রাখতে পারলেও নিজের শহরেই জায়গা পেল না দেব।

নন্দনে(Nandan) এই ফিল্ম শো পায়নি। অনেকেই যদিও মনে করেছেন রাজনৈতিক রঙের কারণে এই শো নন্দনে আসতে পারিনি। বিশেষ করে যেহেতু মিঠুন এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছে। এবং তিনি বিজেপি দলের সদস্য। সেই কারণে নন্দনে এই ছবি স্থান পায়নি।

তবে দেব তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ হয়েও এই বিষয় নিয়ে কোনো রকম বিতর্ক তৈরি করতে চাননি। তিনি অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে টুইটে লিখেছেন নন্দনকে মিস করার কথা। ‘এখানেই গল্প শেষ’ লিখে শান্তিপূর্ণভাবে টুইট ছেড়েছেন তিনি। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়া ক্রমে বিষাক্ত বিতর্কে জড়িয়ে পড়ছে। বিশেষ করে কয়েকটি পেজ যারা মিম তৈরি করতে পছন্দ করেন তাদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে এই বিতর্ক।

তেমনই একটি মিম পেজ ল্যাদারুদা। কলকাতার যাদবপুর অঞ্চলের কোনজন ব্যক্তি এই পেজ পরিচালনা করেন। ২৭ ডিসেম্বর থেকে একটি মিম শেয়ার করা হয় যেখানে দেখা যায় একটি বড় দেয়ালের সামনে দেব দাঁড়িয়ে রয়েছে বিমর্ষ মুখে। পেছনে রাজ চক্রবর্তী(Raj Chakraborty), মিমি চক্রবর্তী(Mimi Chakraborty) এবং নুসরাত (Nushrat Jahan)অর্থাৎ দেবের তিন বন্ধু তাকে দেখে হাসছে। পাশাপাশি তারা বলছে,’ দেখ দেখ তৃণমূলের এমপি হয়েও নন্দনে নিজের সিনেমা চালাতে পারেনি’। এই পোস্ট শেয়ার করে ক্যাপশনে লেখা হয়েছে ‘আসুন বাংলা সিনেমার পাশে দাঁড়াই’। একই সঙ্গে সেখানে টলিউডের নাম দেওয়া হয়েছে ট্রোলিউড।

এই পোস্টের নিচে বর্ষীয়ান এক নেটিজেন সুবীর বিশ্বাস কমেন্ট করেছেন,’ যদি দেব তার ছবি নন্দনে চালাতে পারতো তাহলে হয়তো অনেকে বলতো তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ বলে চালাতে পেরেছেন। আবার তাকে অপমান করে অপর একব্যক্তি উৎসব মৈত্র লিখেছে,’ দাদু তো দেখছি একেবারে অনুপ্রেরণায় অনুপ্রাণিত’।

তবে বেশিরভাগ ওই পেজে দেব হয়ে কথা বলেছেন। দেবের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কেউ কেউ দাবি করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস যদি দেবের পা ধুয়ে জল খায় তাহলে শুদ্ধ হবে।

প্রজাপতিকে আটকে রাখা যায়নি। নিজের ছন্দে নিজের যোগ্যতায় এসে উড়ে চলেছে এখনো। বাংলা সিনেমার ইতিহাসে রেকর্ড গড়েছে প্রজাপতি। মাত্র ১০ দিনে ৪ কোটি টাকার ব্যবসা করেছে এই ছবি। তাই যারা লোক দেখাতে ‘বাংলা ছবির পাশে দাঁড়ান’ বলে স্লোগান তোলেন তাদের এবার সত্যিই সামনে এসে দাঁড়ানোর সময় এসেছে। তা না হলে দেব নিজের খেল দেখিয়ে বেরিয়ে যাবে।

Back to top button