ভাইরাল

১০ লাখ টাকা পণের দাবিতে বিয়ে বন্ধের হুমকি! যৌতুক চাওয়ায় কনেযাত্রীর কাছে বেধড়ক মার খেলো নতুন বর, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় হাজার হাজার ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে তারমধ্যে বিয়ের আসরে ঘটে যাওয়া নানা ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয় নেটিজেনদের মধ্যে। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের এক বিয়েবাড়ির একটি ভিডিও নেট নাগরিকদের মধ্যে তুমুল ভাইরাল হয়েছে। যেখানে নতুন বরকে রীতিমতো মার খেতে দেখা গিয়েছে কনেপক্ষের হাতে।

সম্প্রতি যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সেখানে দেখা যাচ্ছে বিয়ের দিন বিয়ের আসরে মেয়ের বাড়ির লোকের হাতে পণ চাওয়ার অপরাধে বেধড়ক মার খেলো নতুন বর। বর্তমান সমাজে পণ চাওয়া কিংবা যৌতুক দাবি করা আইনত অপরাধ। তাও এখনো কারণে-অকারণে বিয়েতে পণ চেয়ে থাকেন বরের বাড়ির লোক। মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে সব দাবিই মিটিয়ে দেন বাবা-মা। তবে এক্ষেত্রে কোন কিছুতেই সন্তুষ্ট করা যায়নি বরপক্ষকে। মেজাজ হারায় কনের বাড়ির লোকজন। আর তাতেই ঘটে যায় এমন ঘটনা।

কনের পরিবার আগেই নগর তিন লাখ টাকা দিয়ে দিয়েছিল বরপক্ষকে। দিয়েছিল এক লাখ টাকার হীরার আংটিও। কিন্তু হঠাৎ করেই বিয়ের দিন বরপক্ষ বেঁকে বসে। তারা জানায় সমস্ত টাকা না দেওয়া পর্যন্ত বিয়ে হবে না। এই কথা শোনার পরেই মেজাজ হারিয়ে ফেলে কনের বাড়ির লোকজন। বিয়ের দিন বিয়ের আসরেই নতুন বরকে মারধর করা শুরু করে কনের বাড়ির লোকজন। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে একজন পুলিশ কর্মী তাদের থামানোর চেষ্টায় ছিলেন কিন্তু, কে শোনে কার কথা! এমনকি এরপরে এও জানা গেছে পাত্র এর আগে দুই থেকে তিনবার বিয়ে পর্যন্ত করেছে। কনেপক্ষের হাতে মার খাওয়ার সময় পাত্রের মা তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করলেও কোনো লাভ হয়নি, তা ভিডিও দেখেই স্পষ্ট হয়েছে।

সম্প্রতি এই ভিডিওটি একটি টুইটার পেজ থেকে শেয়ার করা হয়েছে। যার নাম ‘ভাইরাল ভিডিওস’ (ViralVdoz)। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে, গাজিয়াবাদের সাহিবাবাদ এলাকায়। সম্প্রতি এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতে না হতেই তুমুল ভাইরাল হয়েছে সমস্ত নেটনাগরিকদের মধ্যে। তবে এই ঘটনা জানার পর বেশিরভাগ মানুষই কনেপক্ষকে সমর্থন করেছেন, আর সেটাই স্বাভাবিক। অনেকের মতে, এসব ক্ষেত্রে এইভাবেই পাত্রপক্ষকে শিক্ষা দেওয়া উচিৎ।

Back to top button