ভাইরাল

সোনা;গাছিতে পাঞ্জাবিতে হাজির মদন মিত্র, সাদা লাল পাঞ্জাবিতে একদম কালারফুল ছেলে হয়ে ঘোষণা করলেন নিজের খুশির খবরের

বর্তমানে রাজ্য রাজনীতি কিছুটা ঠান্ডা হয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের করা দুর্নীতি থেকে। রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রীর এসএসসি দুর্নীতি থেকে আরো নানান দুর্নীতি করায় তাঁকে রাজ্যের শাসক দল এবং তৃণমূলের মন্ত্রিত্ব পদ এবং সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়। বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর কথায় মদন মিত্র একটু “রঙিন ছেলে”। সব সময়ই তাঁর আশেপাশে মৌমাছির মতো ঘিরে থাকে বিভিন্ন নায়িকারা। কিন্তু এখন মদন মিত্র সুন্দর করে সেজেগুজে একদম কুল বয় হয়ে চলে গেছেন সোনাগাছিতে।

সেখান থেকে তিনি শুরু করলেন নিজের নতুন কাজ। সাদা পাঞ্জাবির উপর লাল সুতোর কাজ করা চোখে রোদ চশমা দিয়ে একদম নিজের স্টাইলে পৌঁছেছেন সোনাগাছিতে। তাঁকে দেখে কোনোমতেই বোঝার উপায় নেই যে পূজো আসতে এখনো বেশ কিছুদিনের প্রতীক্ষায রয়েছে। প্রতিবছর সোনাগাছিতে খুব ধুমধাম করে পালিত হয় দেবী দুর্গার পুজো। যে জায়গার মাটি ছাড়া কোন দেবী মূর্তির গঠন দেওয়া সম্ভব নয় সেখানে প্রত্যেক বছর ফুলের ফলে আলোয় সেজে ওঠে। যদিও গত বছর ভাটা পড়েছিল সোনাগাছির মাটিতে।

তবে তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন মদন মিত্র। এবছরেও খুবই ধুমধাম করে আয়োজন শুরু হয়ে গেছে দেবী দুর্গার বন্দনার। এরই মাঝে সোজা সোনাগাছিতে উপস্থিত মদন। আমরা সকলেই জানি তাঁর রাজনৈতিক জীবন বেশ জনপ্রিয় মানুষের মধ্যে। তেমনি তিনি তাঁর ব্যক্তিগত জীবনেও নিজের কালারফুল চিন্তাভাবনার জন্য বেশ পরিচিতি লাভ করেছেন। এবারে তিনি আরো বেশি করে মানুষের কাছাকাছি পৌঁছাতে পারবেন নিজের নতুন কর্মযোগের সাহায্যে। তাঁর জীবনের সব রকম আপডেট তিনি এবার সহজেই পৌঁছে দিতে চান সাধারণের কাছে।

মোটকথা তিনি এ দিন সোনাগাছিতে গিয়ে ঘোষণা করলেন নিজের নতুন ইউটিউব চ্যানেলের। মদনের মহালয়ার নতুন গানও থাকবে এই চ্যানেলেই। এছাড়াও জনসাধারণ উদ্দেশ্যে সেদিন মদন ঘোষণা করলেন, “এই ইউটিউব চ্যানেলের মধ্য দিয়ে এমন কিছু খবর দেওয়ার চেষ্টা করব যা মানুষের কাজে লাগবে। কোনও অতিরঞ্জিত খবর পরিবেশন হবে না। যা রোজগার হবে তা অসুস্থ শিশুদের চিকিৎসায় খরচ করা হবে”। নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে এই ছবি পোস্ট করে রঙিন ছেলে লেখেন, “বাজলো তোমার আলোর বেণু…এবার আত্মপ্রকাশ করলাম ইউটিউবার হিসেবে, ইউটিউব চ্যানেলের শুভ উদ্বোধনী মুহূর্তে”।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Madan Mitra (@madanmitraofficial)

Back to top button