ভাইরাল

সমাজের নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতেই বিয়ে করলেন দুই সমকামী যুবক, প্রশংসার পাশাপাশি জুটেছে ট্রোলিং

বর্তমানে আমাদের সমাজে সমকামী আইন স্বীকৃতি পেয়েছে। আইন হিসেবে স্বীকৃতি পেলেও এখনো সাধারন মানুষ এই বিষয়টিকে নিজের মন থেকে মেনে নিতে পারেননি। দোষ কারোরই নয়, দোষ সময়ের, পরিস্থিতির, জেনারেশনের। তবে এই বিষয়টিতে এখনো সহজ হতে পারেননি সমাজের মানুষরা। তবে সম্প্রতি দুই সমকামী যুবক পরিবারের সম্মতিতে ধুমধাম করে বিয়ে করলেন। তাদের বিয়ের ফটো এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। এই মুহূর্তে তাদের বিয়ে সকলের কাছে একটা দৃষ্টান্ত হয়ে ধরা দিয়েছে।

সম্প্রতি যে দুই সমকামী যুবক একে অপরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন তাদের মধ্যে একজন খাস কলকাতা নিবাসী। অন্যজন হায়দ্রাবাদের বাসিন্দা। কলকাতার সুপ্রিয়া চক্রবর্তীর সাথে হায়দ্রাবাদের অভয় দং’এর বিয়ে হল ধুমধাম করে। মেহেন্দি থেকে আংটি বদল হল সবই। কলকাতা নিবাসী সুপ্রিয় হলেন হোটেল ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউশনের শিক্ষক। আর অপরজন মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে চাকরিরত।

বয়ঃসন্ধির সময় তারা দুজনেই বুঝতে পেরেছিলেন তারা আর পাঁচটা স্বাভাবিক মানুষের মত স্বাভাবিক নন, তারা নিজেদের মতো করে স্বাভাবিক। প্রথমে তাদের পরিবারের তরফ থেকে তাদের সম্পর্ক কেউই মেনে নিতে চাননি। তবে পরবর্তীকালে নিজেদের ছেলের দিকটা বুঝেছিলেন পরিবারের সদস্যরা। আর তারপরেই পরিবারের সমস্ত সদস্যদের এবং আত্মীয়-স্বজনদের উপস্থিতিতে হায়দ্রাবাদেই ধুমধাম করে সমস্ত রীতিনীতি মেনে বিয়ে করেছেন এই দুই যুবক। বর্তমানে গোটা সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তাদের বিয়ের ছবি ভাইরাল হয়েছে।

সুপ্রিয় ও অভয়ের বিয়ের ছবি নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই নেটিজেনদের একাংশ শুভকামনায় ভরিয়েছেন তাদের। তবে আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায় তথাকথিত ট্রোলাররা নিজেদের কাজ করেছেন মনে করেই। তাদের বিয়ের ছবি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই তাদের নিয়ে ট্রোল করতে শুরু করেছেন তারা। তবে এই সমস্ত ট্রোলিং’এ তাদের সত্যিই কিছু যায় আসে না। কারণ তারা অনেক বাধা কাটিয়ে তবেই এক হয়েছেন। স্বীকৃতি দিয়েছেন নিজেদের বিশেষ সম্পর্ককে।

Back to top button