Story

সুচিত্রা দেবীর বাড়ি গিয়ে নিজে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন উত্তম কুমার, উত্তরে কি বলেছিলেন সুচিত্রা দেবী?

সিনেমাপ্রেমী বাঙালিদের কাছে আজীবন সেরা রোমান্টিক জুটি বলতে প্রথমেই যাদের কথা মাথায় আসে তারা হলেন উত্তম সুচিত্রা। মানুষের মনে উত্তম সুচিত্রা জুটি আজীবন চিরসবুজ হয়ে থাকবে। বাঙালি যতই আধুনিক হয়ে উঠুক না কেন ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ সপ্তপদীর সেই সকল মুহূর্ত উত্তম-সুচিত্রার বিভিন্ন সিন কোনদিনই ভুলতে পারবেন না চাইলেই। এখন কত অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই আসছেন অভিনয় জগতে অভিনয় করতে। নতুন করে মহানায়ক মহানায়িকা সম্মান পাচ্ছেন। কিন্তু বাঙালির মনে চিরকাল উত্তম-সুচিত্রাই হলেন মহানায়ক এবং মহানায়িকা। বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগে উত্তম-সুচিত্রা দীর্ঘ ২২ বছর অভিনয় করেছেন একসঙ্গে ৩০ টিরও বেশি ছবিতে জুটি বেঁধেছেন দুজন।

তাদের অনস্ক্রিন রসায়ন জমজমাট হলেও তাদের অফস্ক্রিন সম্পর্ক নিয়ে এখনো কানাঘুষো কথাবার্তা চলে। তাদের পর্দার বাইরের সম্পর্ক ঠিক কেমন ছিল তা নিয়ে আজও কৌতূহল রয়েছে মানুষের মনে। তবে মানুষ যাই ভাবুক না কেন দুজন অন্য কোন সম্পর্কে যাওয়ার আগে ছিল একে অপরের অত্যন্ত কাছের এবং ভালো বন্ধু। সুচিত্রার কাছে উত্তম কুমার ছিলেন উতু এবং সুচিত্রা ছিলেন উত্তম বাবুর কাছে রমা। আর গভীর বন্ধুত্বে হাসি ঠাট্টা মজা সবকিছুই তো দেখা যায়। উত্তম সুচিত্রার সম্পর্কটাও ঠিক তেমনি ছিল। শোনা যায় একবার নাকি সুচিত্রা দেবীর বাড়িতে গিয়ে উত্তম কুমার বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

উত্তম কুমার বলেছিলেন “রমা, তোমার সঙ্গে যদি আমার বিয়ে হতো?” এই প্রশ্নের উত্তরে সুচিত্রা দেবী তখন বলেছিলেন “একদিনও টিকত না সেই বিয়ে। কারণ তোমার আর আমার ব‍্যক্তিত্ব অত‍্যন্ত স্বতন্ত্র। সেখানে সংঘাত হতোই। তুমি চাইতে তোমার সাফল‍্য, আমি চাইতাম আমার। এমন দুজন বিয়ে করলে খুব বাজেভাবে ভেঙে যেত।” আবার দুজনের মধ্যে মান অভিমান ও কম হতো না। একসময় তো দুজনের মধ্যে মান-অভিমানের জন্য শুটিং বন্ধ হয়ে গেছিল। শোনা যায় সপ্তপদী শুটিং চলাকালীন দুজনের মধ্যে রাগারাগি হয়েছিল। যার কারণে ছবির শুটিং অনেক দিন আটকে ছিল।

Back to top button