Story

ট্রেন থেকেই অভিনয় জীবনে অভিষেক তাপস পালের! শুরুতেই নায়ক হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলেন তিনি, টলিউড পেয়েছিলো এক নতুন সুপারস্টার

২৯-শে সেপ্টেম্বর টলিউড অভিনেতা তাপস পালের জন্মদিন ছিল। এই বছর ৬৩-তে পা দিলেন তিনি। তবে এখন আমাদের মধ্যে জীবিত নেই এই টলিউড অভিনেতা। গতবছর, ২০২০-র ১৮-ই ফেব্রুয়ারি প্রয়াত হন অভিনেতা। তবে আজও মানুষের মনে রয়ে গেছেন তিনি। শুরু থেকেই তাপস পালের অভিনয় দক্ষতা দর্শকদের আকর্ষণ করেছিল তার দিকে। বাংলা সিনেমা জগৎ-এ একাধিক জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি।

১৯৫৮ সালের ২৯ শে সেপ্টেম্বর চন্দননগরে জন্ম হয়েছিল অভিনেতার। অভিনয়ের পাশাপাশি লেখাপড়ার ক্ষেত্রে বেশ মেধাবী ছাত্র ছিলেন তাপস পাল। বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়ো-মেডিক্যালে স্নাতক পাশ করেন এই অভিনেতা। এরপর ‘দাদার কীর্তি’ ছবির হাত ধরেই বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে অভিষেক ঘটেছিল এই অভিনেতার।

তাপস পাল অদ্ভুতভাবে পা রেখেছিলেন অভিনয় জগৎ-এ। একবার একজন সাধারণ যাত্রী হিসেবেই ট্রেনে উঠেছিলেন তিনি। ওই ট্রেনেতে একই সাথে যাত্রী হিসেবে ছিলেন ‘দাদার কীর্তি’ ছবির সহকারি পরিচালক শ্রীনিবাস চক্রবর্তী। তাপস পালকে দেখেই তার পছন্দ হয়েছিল। টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি যে ভবিষ্যতের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র তা বুঝতে তার বেশী সময় লাগেনি।

এরপরই ‘দাদার কীর্তি’ ছবিতে নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। এই ছবি মুক্তি পাওয়ার পর দর্শকদের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছিল তাপস পালের অভিনয়। এই ছবির পর অভিনেতাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপরে ‘ভালবাসা ভালবাসা’, ‘সাহেব’, ‘গুরু দক্ষিণা’-র মত সুপার ডুপার হিট ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তাপস পাল। এছাড়াও প্রচুর জনপ্রিয় বাংলা ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা মিলেছিল অভিনেতার।

শুধু বাংলাতেই নয় হিন্দিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে ‘অবোধ’ ছবিতে মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন তাপস পাল। তার অভিনয় নজর কেড়েছিল সকলেরই। নিঃসন্দেহে তিনি একজন সুদক্ষ এবং পরিশ্রমী অভিনেতা ছিলেন তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

পরে তিনি রাজনীতির সঙ্গেও যুক্ত হয়েছিলেন। ২০০১ থেকে টানা ২০০৯ পর্যন্ত আলিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন তাপস পাল। এরপর ২০০৯ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত কৃষ্ণনগরে সাংসদ পদেও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে শোকাহত হয়েছিল টলিউড থেকে রাজনীতি মহলের সকলেই।

বুধবার টলিউডের প্রথম সারির অভিনেতা তাপস পালের জন্মদিনে সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু তারকারা তাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ছবি শেয়ার করেছেন। তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। তিনি পুরনো দিনের কিছু স্মৃতি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার ওয়ালে শেয়ার করে স্মৃতিচারণ করেছেন। আর এই পোস্টে নেটিজেনরা নানা মন্তব্য লিখে তাপস পালের প্রতিভার প্রশংসা করেছেন।

Back to top button