Story

বাঙালির প্রিয় ‘শ্রীলেদার্স’ গড়ে তুলেছিলেন মাস্টারদা সূর্য সেনের সহকারী সুরেশ দে! জানুন স্বাধীনতা সংগ্রামী বাঙালির সফল ব্যবসার অজানা গল্প

আপামর বাঙালির কাছে পছন্দের জুতো কোম্পানি বললেই শ্রীলেদার্সের নাম উঠে আসে বারংবার। তবে এখন শুধু বাংলা নয় বরং কলকাতার গণ্ডি ছাড়িয়ে দেশে এবং বিদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে এই কোম্পানির খ্যাতি।

তবে অনেকেই জানেননা মাস্টারদা সূর্যসেনের সহকারি এক বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামীর হাত ধরে ১৯৫২ সালে জামশেদপুরে স্বাধীনতা সংগ্রামী সুরেশ দে তৈরি করেছিলেন চামড়ার জুতোর কোম্পানি শ্রীলেদার্স।

পাশাপাশি এই তথ্যও অনেকের অজানা যে মাস্টারদা সূর্য সেনের সক্রিয় সহকারী ছিলেন সুরেশ দে। চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুন্ঠনের পাশাপাশি জালালাবাদের যুদ্ধতেও এই বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামী লড়াই করেছিলেন ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত আহত হয়ে ধরা পড়তে হয় তাকে পুলিশের হাতে। ইতিহাসের গ্রন্থ বলে প্রবল অত্যাচারেও মুখ খোলেননি সুরেশ দে, তুলে দেন নি কোন তথ্য ব্রিটিশ পুলিশের হাতে।

স্বাধীনতার পর জামশেদপুরে তিনি জুতোর ব্যবসা শুরু করার পর অতি অল্প দিনের মধ্যেই তার তৈরি চামড়ার জুতো জনপ্রিয় হয়ে ওঠে বাঙ্গালীদের মধ্যে। এরপর ১৯৯০ সালে তাঁর মৃত্যু হয়। তবে ততদিনে শ্রীলেদার্স হয়ে উঠেছিল ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় ব্র্যান্ড।

বর্তমানে তার তিন ছেলে সত্যব্রত দে, আশীষ দে এবং শেখর দের হাত ধরেই ব্যবসার বিস্তৃতির ঘটেছে শ্রীলেদার্সের। বাঙালির গর্ব বাড়িয়ে তাই আজ ভারতের বাইরে গ্রিস, কুয়েত এবং জার্মানিতেও চুটিয়ে ব্যবসা করছে এক বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামীর হাত ধরে গড়ে ওঠা এই জুতোর কোম্পানি।

Back to top button