Story

বিতর্ক ছুঁতে পারেনি মাস্টার ব্লাস্টারকে, বিশ্বরেকর্ড গড়েও আদর্শ স্বামী হয়ে আছেন শচীন তেন্ডুলকর

ক্রিকেট মাঠের ‘মাস্টার ব্লাস্টার’ তিনি। ‘শত’ সেঞ্চুরি ঝুলিতে। তিনি মাঠে নামলেই আনন্দে গা ভাসাত গোটা ভারতবাসী। অনেকবার এই খেলোয়াড়ের হাত ধরেই জয়ের মুখ দেখেছে দল। ইন্ডিয়া টিমের ‘লিটিল মাস্টার’ ইনি। মাত্র ১৬ বছর বয়সেই ২২ গজে অভিষেক শচীন টেন্ডুলকারের। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোট ৩৪,৩৫৭ রান করেছেন সকলের মাস্টারব্লাস্টার।

নিঃসন্দেহে ভারতের শ্রেষ্ঠ ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম হলেন শচীন টেন্ডুলকার। রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গাঙ্গুলী, বীরেন্দ্র শেওয়াগের মতন আমি বড় মাপের প্লেয়ারদের সঙ্গে খেলেছেন আমাদের লিটল মাস্টার। তিনি মাঠে নামলেই হইহই করে উঠত গোটা স্টেডিয়াম। আর উইকেট পরলে নিস্তব্ধতার ছায়া নেমে আসত স্টেডিয়াম জুড়ে।

তার হাত ধরেই একাধিকবার জয়ের মুকুট করেছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। তবে শুধুমাত্র একজন ভালো ক্রিকেটার তিনি নন। ক্রিকেটার হওয়ার পাশাপাশি শচীন টেন্ডুলকার একজন অঙ্গীকারবদ্ধ স্বামী, লাজুক প্রেমিকও বটে।

এক সাক্ষাৎকারে শচীন টেন্ডুলকারের স্ত্রী অঞ্জলি বলেছিলেন, “আমাদের বিয়ে হওয়ার পর থেকে তিনি বাড়িতে দীপাবলি কাটাননি। যেটুকু সময় সে বাড়িতে থাকে সেটিই দারুণ!” ক্রিকেট দুনিয়ার একটা বড় নাম সচিন টেন্ডুলকার। খুব স্বাভাবিক ভাবেই তার মহিলা ভক্তের সংখ্যা কম ছিলনা। তবে আজ পর্যন্ত কোনো দিনও শচীন টেন্ডুলকারের নাম কোন মহিলার সঙ্গে জড়ায়নি। বিতর্ক থেকে হাজারগুন দূরে ছিলেন এই প্লেয়ার। বিবিসির এক সাক্ষাৎকারে শচীন টেন্ডুলকারকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল তার স্বপ্নের নারী কে? সময় না নিয়েই উত্তর দিয়েছিলেন ‘আমার স্ত্রী’।

একজন ভালো ক্রিকেটার হওয়ার পাশাপাশি তিনি একজন ভালো বাবা এবং ভালো স্বামীও বটে। ব্যস্ততার মাঝেও তিনি যথেষ্ট সময় দিতেন নিজের পরিবারকে। ক্রিকেট মাঠের পরে তার ভালোবাসা তার পরিবার। সেটা তিনিই বুঝিয়ে দিয়েছেন পদে পদে।

Back to top button