Story

কেন অলকেশ থেকে নাম হলো বাপ্পি? চেহারার মতোই রঙিন ছিল সুরকারের জীবনও, বাপ্পি লাহিড়ীর জীবনের রইলো কয়েকটি বিশেষ ঘটনার কথা

ফের সুরজগতের নক্ষত্র পতন। মাত্র ৬৯ বছর বয়সে আচমকাই সকলের চোখকে ফাঁকি দিয়ে বিদায় নিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। শুধু রেখে গেলেন তার রক গানের কিছু বিপুল সম্ভার। এর আগে ১৫ই ফেব্রুয়ারি আমরা হারিয়েছি সৌরজগতের আরেক অভিনব নক্ষত্র সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় কে। এরপরের ১৬ই ফেব্রুয়ারি সকাল বেলা বাপ্পি লাহিড়ীর মৃত্যুর খবর আসে। আগের দিন অর্থাৎ ১৫ই ফেব্রুয়ারি রাতের বেলায় মারা গিয়েছেন বলে জানা যায়। বাপ্পি লাহিড়ীর মৃত্যুর খবরে অবাক হয়েছেন প্রত্যেকেই। মাত্র ৬৯ বয়সে তার এই হঠাৎ চলে যাওয়া কেউই মেনে নিতে পারছেন না। আজ আমরা জেনে নেবো সেই মানুষটির জীবনের কিছু অজানা গল্প।

জন্মসূত্রে তার নাম ছিল অলকেশ। সিনেমা জগতের কাজের সূত্রে প্রবেশ করার পরে তিনি নাম নিলেন বাপ্পি। ছেলের নাম অরুণেশ। মাত্র ১৯ বছর বয়সে সংগীত জগতে প্রবেশ করেছিলেন তিনি।

১৯৮৩ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত মোট ১২ টি সুপারহিট ছবির গানের সুর দেন তিনি। যেটি এখন অব্দি সিনেমা জগতে রেকর্ড। তার একদিনের সর্বাধিক গান গাওয়ার রেকর্ড রয়েছে। বছরে সর্বাধিক গান গাওয়ার জন্য গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম উঠেছিল তার।১৯৮৬ সালে ৩৩ টি সিনেমার জন্য মোট ১৮৬ টি গান রেকর্ড করেন তিনি। কিশোর কুমার ছিলেন বাপ্পি লাহিড়ীর মামা মামার হাত ধরেই প্রথম এই ইন্ডাস্ট্রিতে গান গাইতে আসার সুযোগ পান তিনি।

বাপ্পি লাহিড়ী হলেন প্রথম সেই ভারতীয় সুরকার যাকে বিবিসি লন্ডনের হয়ে লাইভ পারফরম্যান্সের অনুরোধ জাানান জোনাথন রস। ‘জাস্টিস ফর উইডোজ’নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা থেকে তাকে ‘হাউজ অব লর্ডস’- এর সম্মান দেওয়া হয়।

২০১১ সালে বাপ্পি আমেরিকান আইডল-জীয় শন বারোজের সঙ্গে তিনি ‘ওয়াকিং অন লাভ স্ট্রিট’ বলে একটি অ্যালবাম করেন। সেটি দারুন জনপ্রিয়তা পায়। এমনকি ‘ইউ ডোন্ট মেস উইথ দ্য জোহানস’ বলে হলিউডের ছবিতে বাপ্পি লাহিড়ির বিখ্যাত গান ‘জিমি জিমি আজা আজা’ গানটি ফিচার হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তিনি চলে গেলেন, কিন্তু রেখে গেলেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান এবং স্মৃতি।

Back to top button