Story

দুঃখ ও হৃদয়স্পর্শী গান গাইতে গাইতে শেষ জীবনটাও দুঃখের হয়ে উঠেছিল নির্মলা মিশ্রর! ‘মৃত্যু নয় সমস্ত কষ্ট থেকে শান্তি পেলেন তিনি’ বলছেন কিংবদন্তি গায়িকা হৈমন্তী শুক্লা

‘ও তোতা পাখি রে’ গানটি গেয়ে যিনি সকলের মন জয় করে নিয়েছিলেন তিনি হলেন স্বনামধন্য গায়িকা নির্মলা মিশ্র। কালজয়ী গান গেয়ে বিখ্যাত হয়ে ওঠা এই গায়িকা গত শনিবার ইহলোক ত্যাগ করেন। বার্ধক্য জনিত সমস্যায় বহুদিন ধরেই ভুগছিলেন তিনি তবে মূলত হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন নির্মলা মিশ্র। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

অসুস্থতা জনিত কারণে এর আগেও বারংবার তাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। সেই কারণে জীবনের শেষ সময়টা আর তিনি হাসপাতালে থাকতে চান নি। বাড়িতে রেখেই জোর কদমে চলছিল তার চিকিৎসা। তবে লাভ হচ্ছিল না কষ্টের মধ্যে দিয়ে দিন কাটছিলো তার। মৃত্যু এসে সেই সকল কষ্টের হাত থেকে তাকে মুক্তি দিল।

হৈমন্তী শুক্লা বলেন, এতটাই কষ্ট পাচ্ছিলেন গায়িকা নির্মলা মিশ্র যে তার আপনজনেরাও চাইছিলেন যে মৃত্যুর মধ্য দিয়ে হলেও তিনি শান্তি পান। বিগত চার বছরে ১০ থেকে ১৫ বার তাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। স্ট্রোক হয়েছিল তার, তবে লড়াইয়ে থেমে যাননি গায়িকা, চেষ্টা করছিলেন মৃত্যুকে পরাস্ত করে নতুন জীবনী শক্তি নিয়ে বারংবারের মতো আবার উজ্জীবিত হয়ে উঠতে। পেরেও ছিলেন বহুবার।

কিন্তু গত শনিবার রাত্রে হঠাৎ করেই তার শ্বাসকষ্ট শুরু হয়, তখন বাড়িতেই চিকিৎসক তার চিকিৎসা শুরু করেন। তবে বাঁচানো যায়নি গায়িকাকে। শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন গায়িকা। রয়ে যায় তার কালজয়ী অমর সব গান। শনিবার গায়িকার মৃত্যু হলে তার মৃতদেহ সে রাত্রে সার্দান এভিনিউয়ের একটি নার্সিংহোমে রাখা হয়। এরপর রবিবার তার মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয় রবীন্দ্রসদনে সেখানে শেষবারের মতো সকলে উপস্থিত হয়েছিলেন নির্মলা দেবীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে, তারপর সুরের লোকে পাড়ি দেন কিংবদন্তি নির্মলা মিশ্র।

Back to top button