বলিউড

প্রতিভার জোরেই ইন্ডিয়ান আইডলের ট্রফি পবনদ্বীপের হাতে! আগেও রিয়েলিটি শো জিতেছেন এই গায়ক, রইল উত্তরাখণ্ডের পবনদ্বীপের আসল পরিচয়

টানা ৮ মাসের পথ চলা শেষ করে শেষ হয়েছে ইন্ডিয়ান আইডল সিজেন ১২। এই ইন্ডিয়ান আইডলের দৌলতে ঘরে ঘরে পবনদ্বীপ রাজনের নাম ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই প্রতিযোগিকে চেনেন না এমন মানুষ হয়তো খুব কমই আছেন। প্রতিযোগিতায় জিতে পবনদ্বীপ পেয়েছেন ইন্ডিয়ান আইডলের ট্রফি, পঁচিশ লক্ষ টাকা এবং একটি গাড়ির চাবি। তবে কে এই পবনদ্বীপ!

গত ১৫ ই আগস্ট ছিল ইন্ডিয়ান আইডলের গ্র্যান্ড ফিনালে। টানা আট মাস জার্নির পর অবশেষে শেষ হলো এই রিয়েলিটি শো। টানা ১২ ঘণ্টা ধরে অনুষ্ঠান চলার পর তারপরে বিচারকরা নিজেদের সিদ্ধান্তে এসেছেন। গ্র্যান্ড ফিনালের দিন সমস্ত প্রতিযোগিতায় নিজেদের বেস্ট পারফরমেন্স দেয়ার চেষ্টা করেছেন। শেষ পর্যন্ত একদম ৬ জন প্রতিযোগী টিকে থাকতে পেরেছিল। এই ছয় জন প্রতিযোগী হলেন পবন দ্বীপ রঞ্জন, অরুনিতা কাঞ্জিলাল, সায়লী কেম্বেলে, সম্মুখ প্রিয়া, নীহাল তাউরা এবং মোহাম্মদ দানিশ। দুপুর ১২ টায় শুরু হয়েছিল ইন্ডিয়ান আইডলের গ্র্যান্ড ফিনালে এবং শেষ হয়েছে রাত ১২ টায়। মেতে উঠেছিল গোটা দেশ। পবনদ্বীপ এবং অরুনিতাকে নিয়ে বেশ স্বপ্ন দেখেছিল সবাই। প্রথম স্থান অধিকার করেছেন পবনদ্বীপ।

উত্তরাখণ্ডের এক মিউজিকাল পরিবারের জন্মগ্রহণ করেছেন ইন্ডিয়ান আইডললের বিজেতা। বাবা সুরেশ রাজনের উদ্যোগেই তার প্রথম হাতেখড়ি। বাবা এলাকার সমস্ত অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করতেন। পবনদ্বীপ কলেজে পড়ার সময় থেকেই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে শুরু করে। সেখানে নিজে পাকাপোক্ত হয়ে উঠলে তারপর একে একে অডিশন দেওয়া শুরু করেন। ২০১৫ সালের ভয়েস অফ ইন্ডিয়ায় প্রথম সুযোগ পান। এই রিয়েলিটি শোয়ের ট্রফি ও উঠেছিল তার হাতে। কাফির পাশাপাশি পেয়েছিলেন পঞ্চাশ লক্ষ টাকার চেক, একটি মারুতি অলটো কে টেন কারের চাবি এবং ইউনিভার্সাল মিউজিক কোম্পানির সঙ্গে একটি চুক্তিপত্র।

এই চুক্তিপত্র অনুযায়ী সেই একই সালেই মুক্তি পায় পবনদ্বীপের প্রথম মিউজিক ভিডিও ইয়াকিন। সেই বছরেই তাকে উত্তরাখণ্ডের ইয়ুথ ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘোষণা করা হয় ভয়েজ অব ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে। ২০১৬ সালে অরুণ হারুন রশিদের যৌথ একটি মিউজিক অ্যালবাম মুক্তি পায়। যার নাম ছোলিয়োর। ২০১৭ সালে রোমিও এন্ড বুলেট ফিল্ম এর জন্য পবনদ্বীপ তেরে লিয়ে গানটি গেয়েছিলেন। শুধু গানই নয়, গানের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি মিউজিকাল ইন্সট্রুমেন্ট যেমন কিবোর্ড, ড্রাম, তবলা, গিটার বাজাতে সিদ্ধহস্ত তিনি। ইন্ডিয়ান আইডলের মঞ্চে সবাইকে অবাক করে দিয়ে ঢোলক বাজিয়েও দেখিয়েছিলেন তিনি।

Back to top button