বলিউড

‘হিন্দুধর্মের অসম্মান’! কন্যাদান-বিরোধী বিজ্ঞাপনে অভিনয় করে এবার নেটিজেনদের চরম সমালোচনার মুখে পড়লেন অভিনেত্রী আলিয়া ভাট

একটি বস্ত্র প্রস্তুতকারক সংস্থার বিজ্ঞাপনে অভিনয় করে সোশ্যাল মিডিয়ায় এবার তীব্র সমালোচনার মুখে পড়লেন বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। নেটিজেনদের একাংশ তাকে ইতিমধ্যেই ‘হিন্দু ধর্ম বিরোধী’ তকমা এতে দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত ওই বস্ত্র প্রস্তুতকারক সংস্থার বিজ্ঞাপনে মূলত হিন্দু বিবাহের একটি রীতি কন্যাদান এর বিরুদ্ধে সুর তোলা হয়েছিল। বিজ্ঞাপনে আলিয়াকে কন্যাদান নয় বরং এবার থেকে কন্যামান করা উচিত, বলতে দেখা যায়। এরপরেই হিন্দু ধর্মের পবিত্র কন্যাদান নীতির বিরুদ্ধে মুখ খোলায় আলিয়াকে তীব্র কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়।

পাশাপাশি নেটিজেনদের একাংশ মনে করছেন বিজ্ঞাপনে যে ভাবে নারীকে বস্তু হিসেবে দেখিয়ে কন্যাদান এর অর্থ কন্যাকে দান করে দেওয়া বোঝানো হয়েছে, বাস্তবে মোটেও কন্যাদান বলতে তা বোঝানো হয় না। বিয়ের সময় কন্যার পিতা অগ্নিকে সাক্ষী রেখে নিজের গোত্র থেকে স্বামীর গোত্রে কন্যাকে প্রবেশ করান এবং স্বামীও অগ্নি সাক্ষী রেখে তা গ্রহণ করেন। এই ধর্মীয় রীতিকেই কন্যা দান বলা হয়।

কিন্তু বিজ্ঞাপনে তা দেখানো হয়নি। ফলে সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনদের একটি বড় অংশ মনে করছেন বিজ্ঞাপন নির্মাতারা শাস্ত্র সম্পর্কে কোন ধারণা না রেখেই বিজ্ঞাপনটি তৈরি করেছেন। তবে গোটা বিষয়টি নিয়ে এখনও অভিনেত্রী প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি। পাশাপাশি ওই বস্ত্র নির্মাণ সংস্থার তরফেও গোটা বিতর্ক নিয়ে এখনো পর্যন্ত কিছু প্রকাশ্যে জানানো হয়নি।

Back to top button