বলিউড

রক্ষা করতে হবে রাম সেতু। নিজের কাঁধে পাথর নিয়ে জলের মধ্যে হাঁটলেন অক্ষয়

২০০৭ সালে তৎকালীন কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করে রাম সেতু ভেঙে ফেলার জন্য। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে করা হয় পাল্টা মামলা। এরপর ২০০৭ সালের ৩১ শে আগস্ট সুপ্রিম কোর্ট রামসেতু ধ্বংস বা কোনরকম ক্ষয়ক্ষতির উপর স্থগিতাদেশ জারি করে। এই মামলার প্রেক্ষাপট নিয়ে তৈরি হয়েছে একটি বলিউড ছবি রাম সেতু। এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় রয়েছেন বলিউডের খিলাড়ি অক্ষয় কুমার। ১১ ই অক্টোবর এই ছবির ট্রেলারটি মুক্তি পাওয়ার পর সারা পড়ে গেছে চারদিকে।

ছবির ট্রেলারে দেখা যাচ্ছে অক্ষয় কুমার একজন প্রত্নতাত্ত্বিকের চরিত্রে অভিনয় করছেন। তিনি রামসেতু বাঁচানোর জন্য একেবারে মরিয়া। দেখা যায় একটি বিশেষ পোশাকে অক্ষয় কুমার ডুব দিয়েছেন জলের নিচে। সেখান থেকে তিনি তুলে এনেছেন একটি হলুদ পাথর। এরপর তিনি বলেন তার হাতে মাত্র তিন দিন সময় আছে এই রাম সেতু বাঁচানোর জন্য। এই ট্রেলারে অক্ষয় কুমার ছাড়াও দেখা গেল নুসরত বারুচা, জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ, সত্যদেব কাঞ্চরনাকে। ট্রেলার অনুযায়ী এনারা প্রত্যেকেই রামসেতু বাঁচানোর মিশনের জন্য লক্ষ্য স্থির করেছেন। এই ট্রেলারের ব্যাকগ্রাউন্ডে শোনা যাচ্ছে “রাম রাম” গান। সমুদ্রের নিচের প্রাকৃতিক দৃশ্য ও অক্ষয় কুমারের নতুন লুক ইতিমধ্যেই নজর কেড়েছে সবার।

অন্যদিকে শুরু থেকেই বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে রাম সেতু ছবিটি। অভিযোগ এই ছবিতে ইতিহাস বিকৃত করার চেষ্টা হচ্ছে।বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী একটি আইনি নোটিশও পাঠিয়েছেন রাম সেতু টিমকে। তিনি অভিযোগ করেছেন, “আসল সত্যিটাকে বিকৃত করা মুম্বাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির লোকেদের একটা অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। আমি তাদের বোঝাতে চাই ইন্টালেকচুয়াল প্রপার্টি রাইটস আসলে ঠিক কি। তাই আমি আমার সহযোগী সত্য সবরওয়ালের সাহায্যে রাম সেতু টিমকে একটি আইনি নোটিশ পাঠিয়েছি।”

সূত্রের খবর, মুম্বাই ছাড়াও দমন, দিউ উটিতে এই ছবির শুটিং হয়েছে।অভিষেক শর্মা পরিচালিত এই ছবিটি প্রযোজনা করেছে কেপ আমাজন প্রাইম ভিডিয়ো, অ্যাবুন্ড্যান্টিয়া এন্টারটেইনমেন্ট এবং লাইকা প্রোডাকশন। আসন্ন দীপাবলি উৎসবে এই ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা।

Back to top button