‘যমুনা ঢাকি’-র বিন্দুবাসিনী দেবী চরিত্র তুমুল জনপ্রিয়তা পাচ্ছে, কিন্তু গায়িকা হতে চেয়েও নায়িকা আজ সোমা দে! রইলো অভিনেত্রীর আসল পরিচয়

সোমা দে নামটা প্রায় সকল বাঙালির কাছেই বেশ পরিচিত। প্রথম জীবনে অভিনেত্রীর ইচ্ছা ছিল গাইকা হওয়ার। তবে একটি ফটো স্টুডিওতে সোমা দে-র ছবি দেখে পছন্দ হয়ে যায় পরিচালক অর্চন চক্রবর্তীর। এরপর থেকেই অভিনয় জীবনের শুরু হয়।

অর্চন চক্রবর্তী পরিচালিত ফিল্ম ‘জীবনের জটিলতা’-র মাধ্যমে ১৯৭২ সালে টলিউডে পথ চলা শুরু হয় সোমা দের। অভিনেত্রীর অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম সিনেমা ছিল ‘হারায়ে খুঁঞ্জি’। এই সিনেমাটি ১৯৭৪ সালে মুক্তি পেয়েছিল। ওই বছরই আরো একটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছিল ‘জন্মভূমি’।

এরপর থেকেই তার অভিনয় নজর কাড়তে শুরু করেছিল দর্শকসহ সমস্ত পরিচালকদের। ১৯৭৬ সালে সোমা দে অভিনীত চারটি সিনেমা মুক্তি পায়। যেগুলির নাম ‘বিল্বমঙ্গল’, ‘বন্দী বিধাতা’, ‘শঙ্খবিষ’, ‘সূদুর নীহারিকা’। সোমা দে অভিনীত এই চারটি সিনেমাই বেশ হিট করেছিল ঐ সময়ে।

এরপর থেকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি আর অভিনেত্রীকে। এরপর থেকে একের পর এক সিনেমায় এবং মেগা সিরিয়ালে অভিনয় করে গেছেন অভিনেত্রী সোমা দে।

পরিচালক তরুণ মজুমদার পরিচালিত ছবি ‘শহর থেকে দূরে’-তে অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী। এই অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি।

বর্তমানে অভিনেত্রী সোমা দে জি বাংলার ‘যমুনা ঢাকি’ সিরিয়ালে অভিনয় করছেন। এই ধারাবাহিকে অভিনেত্রী বিন্দুবাসিনী দেবীর চরিত্রে অভিনয় করছেন। যা ইতিমধ্যেই বেশ জনপ্রিয় হয়েছে দর্শক মহলে।

সোমা দে হলেন একজন সাহসী অভিনেত্রী। তিনি তার বাড়ির লোকেদের অমতে গিয়ে অভিনেত্রী হয়েছেন। তিনি একা থেকে নিজেকে প্রমাণ করেছিলেন ঐ সময়ে।

সোমা দের অভিনীত প্রথম সিনেমা হিট হওয়ার পর থেকে তার বাড়ির লোক তার এই অভিনয় নিয়ে আর অমত করেননি। সোমা দে স্কটিশ চার্চ কলেজে পলিটিকাল সাইন্স নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। রবীন্দ্রসঙ্গীতটাও তিনি বেশ ভালো গাইতেন।

সোমা দের স্বামীর নাম বিবেক চ্যাটার্জ্জী। তাদের দুটি সন্তান আছে। মেয়ের নাম যজ্ঞেসেনী চ্যাটার্জ্জী এবং ছেলের নাম স‍ামন্তক চ্যাটার্জ্জী। তবে সোমা দে নিজের স্বামীর পদবী অনস্ক্রিন ব্যবহার করেন না।