ভাইরাল

বাদাম কাকুর দিন শেষ, ভুবন বাদ্যকরকে ভুলে গিয়ে ৮৩ বছর বয়সে এখন বাজার কাঁপাচ্ছেন কাঠি ভাজা দাদু, এবারে সবাই হুগলির বৃদ্ধ কাঠি ভাজা দাদুর গানে মেতে উঠলো

আজ থেকে প্রায় এক বছর আগে রাস্তায় রাস্তায় বাদাম বিক্রি করতে করতে তার গান ভাইরাল হয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিমেষেই দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছিলেন বীরভূম জেলার ভুবন বাদ্যকর। এরপর তো সোশ্যাল মিডিয়ার ক্ষমতা আমরা প্রত্যেকেই দেখেছি শুধুমাত্র দেশ নয় বিদেশেও ভুবন বাদ্যকরের গান পৌঁছে গিয়েছিল। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে রাতারাতি আসে জনপ্রিয়তা।

তারপর তাকে আর ঘুরে তাকাতে হয়নি। বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলের তরফ থেকে তিনি পেয়েছেন অফার। তাদের সাথে মিউজিক ভিডিওতে গান করেছেন। এছাড়াও বিভিন্ন স্টেজ শোতে ডাক পেয়েছেন ভুবন বাবু। তার কাঁচা বাদামের গানের তালে নেচে উঠেছিল গোটা দেশ। তবে এবারে ভুবন বাদ্যকরের কাচা বাদামের দিন শেষ। বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপ আছে ৮৩ বছরের হুগলির এক বৃদ্ধ।

৮৩ বছরের ওই বৃদ্ধের নাম গৌড় কোলে, যদিও এলাকাবাসী থাকে প্রত্যেকেই শ্যামলীর কাঠি ভাজা নামেই চেনে। গ্রামে গ্রামে সাইকেল করে ঘুরে বেড়িয়ে কাঠি ভাজা বিক্রি করেন তিনি। এত বয়স হয়ে গেলেও কারো কাছে হাত পাতেন না। নিজে পরিশ্রম করে রোজগার করেন নিজের খাবার নিজেই জোগাড় করে নেন। প্রতিদিন সকালেই ঐ বৃদ্ধ নিজের সাইকেল নিয়ে কাঠি ভাজা বিক্রি করতে বেরিয়ে পড়েন সঙ্গে থাকে তার ভেপু বাজিয়ে অসাধারণ গান।

ওই বৃদ্ধের বাড়ি হুগলি জেলার সিঙ্গুরের কুমির মারা থইপাড়া অঞ্চলে। তার আর্থিক অবস্থা অত্যন্ত সংকট। আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে পায়ে ঠিকমতো জুতো চটি জোটে না। দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে তিনি একইভাবে এই কাঠি ভাজা বিক্রি করে যাচ্ছেন। শীতকালে কাঠি ভাজা এবং গরমকালে আইসক্রিম বিক্রি করেন এই দাদু।

উল্লেখ্য গ্রামে গ্রামে ঘুরে ঘুরে কাঁচা বাদাম বিক্রি করার জেরেই সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতের ভাইরাল হয়ে পড়েছিলেন ভুবন বাবু। আজ তিনি একজন সাধারণ বাদাম বিক্রেতা থেকে সেলিব্রিটিতে পরিণত হয়েছেন। নিজের বাড়ি গাড়ি সবকিছুই কিনেছেন।

Back to top button