ভাইরাল

জোড়া সুখবর মিঠাই পরিবারে! মিঠাই ও তার শাশুড়ি অনুরাধা একই সাথে অন্তঃসত্ত্বা হলেন! মজার ছবি ভাইরাল করলেন অনুরাগীরা

সমরেশের একাকী জীবন ও তার কষ্টকে অনুভব করে সমরেশের বউমা মিঠাই সমরেশের জীবনে জীবনসঙ্গী আনার কথা ভাবে। তার সঙ্গে সঙ্গ দিয়ে ছিল সমরেশের জামাই রাতুল‌‌ও। এরপর রাতুল শ্রীকে আর মিঠাই সিদ্ধার্থকে বোঝায়। ছেলে মেয়ে রাজি হয় একই সাথে সমরেশের বাবা মাও রাজি হয়। পুরো পরিবার যখন সমরেশের বিয়ের বিষয়ে রাজি তখন মিঠাই নিজে অনুরাধা ম্যামের সাথে কথা বলে। অনুরাধা ম্যাম কে জিজ্ঞেস করে, সে তার শাশুড়ি হতে রাজি কিনা? অনুরাধা ম্যাম রাজি হন এবং নিজে দায়িত্ব নিয়ে সমরেশ কে রাজি করেন।

এরপর খুব সুন্দর ভাবে ঘরোয়া একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সমরেশ ও অনুরাধার বিয়ে হয়ে যায়। আইনি বিয়ের সাথে সিঁদুর দান এবং মালা বদল‌ও হয়, মিঠাইয়ের জীবনের শাশুড়ি না থাকার ক্রাইসিস মিটে যায়, অবশেষে শাশুড়ি পেল মিঠাই। এইভাবে যখন মিঠাই পরিবার হাসিঠাট্টায় মেতে উঠেছে তখনই একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ভাইরাল হয়ে গেল। যেখানে দেখা যাচ্ছে মোদক পরিবারে আসছে খুশির খবর, তবে একটি নয় জোড়া খুশির খবর আসছে মোদক পরিবারে। একই সাথে অন্তঃসত্ত্বা হচ্ছে বৌমা ও শাশুড়ি মা।

ভাইরাল ছবিতে দেখা যাচ্ছে যে মিঠাইয়ের শাশুড়ি অনুরাধা ও মিঠাই দুজনেই অন্তঃসত্ত্বা দুজনের বেবিবাম্প বোঝা যাচ্ছে অন্যদিকে স্ত্রীদের পাশে দাঁড়িয়ে আছে হবু বাবারা সমরেশ ও সিদ্ধার্থ। এই ছবি দেখে মাথা ঘুরে গেছে মিঠাই ভক্তদের। ছবিটি দেখে সকলেই হেসে লুটিয়ে পড়ছেন। অনেকেই প্রশ্ন করেছেন এও সম্ভব বাবা আর ছেলে একসাথে বাবা হবে? এই ধারণা ভবিষ্যতে হয়তো সত্যি হতে পারি কিন্তু বর্তমানে এটি সত্য হয়নি আসলে বর্তমানে যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছে সেটি মিঠাই ভক্তদের বানানো একটি ছবি। বলিউডের জনপ্রিয় কমেডি একটি সিনেমা গুড নিউজ সেই ছবির পোস্টারে কিয়ারা আদবানি ও করিনা কাপুরের জায়গায় মিঠাই ও অনুরাধা ম্যামের মুখ বসিয়ে দেওয়া হয়েছে অন্যদিকে দিলজিৎ ও অক্ষয় কুমারের জায়গায় বসানো হয়েছে সিদ্ধার্থ ও সমরেশের মুখ। তবে এই ছবি দেখে হেসে লুটিয়ে পড়লেও দর্শকরা দাবি করেছেন যে এমনটা যদি দেখানো হয় তবে বাংলা ধারাবাহিকের ইতিহাসে মিঠাই দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। কারণ মানুষের মনন ও মানসিকতার পরিবর্তন হওয়া দরকার। কিছু সংখ্যক মানুষ এখনো পুরনো যুগে পড়ে আছেন বলে সবাই থাকতে পারেন না। আধুনিকতা আসতে হবে শুধু ভাবনা-চিন্তায় নয় জীবন যাত্রার মধ্যেও।

Back to top button