ভাইরাল

বিদ্যালয়ে এসে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ানোর বদলে গা হাত পা ম্যাসাজ করাচ্ছেন শিক্ষিকা, সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি ভাইরাল ভিডিও

যে কোন শিশুকে শিক্ষিত এবং মানুষের মত মানুষ করে তোলে সবথেকে প্রধান অস্ত্র হলো শিক্ষা। পুঁথিগত বিদ্যা এবং সর্বাঙ্গিক বিদ্যার এই দুই দিয়েই একজন শিশু ভবিষ্যতে মানুষের মত মানুষ হয়ে ওঠে। আর এই দুই শিক্ষাই আসে পরিবার এবং শিক্ষক শিক্ষিকার কাছ থেকে। তাই শিশুদের এই শিক্ষা অর্জন করার প্রধান জায়গা হল বিদ্যালয়। সেখানেই তারা নিয়মিত নিজেদের শিক্ষার জন্য গিয়ে থাকে। জীবনের নানা নিয়মকানুন পুঁথিগত বিদ্যা ব্যবহার ইত্যাদি শেখার অন্যতম স্থান হলো বিদ্যালয়। সেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকারা তাদের শেখায় কি করে মানুষের সাথে সঠিক ব্যবহার করতে হয় কোনটা ঠিক কোনটা ভুল সবকিছু। কিন্তু এই বিদ্যালয়তে যদি একজন শিক্ষক শিক্ষিকা পড়াশোনার বদলে ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে হাত-পা ম্যাসেজ করান তাহলে ব্যাপারটা কেমন হয় বুঝতে পারছেন? সম্প্রতি এক বিদ্যালয় এই ধরনেরই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। যা সারা সোশ্যাল মিডিয়ায় জুড়ে এখন এই খবর বেশ ভাইরাল।

উল্লেখ্য সম্প্রতি বেশ কিছুদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া একটি ভিডিও দারুন ভাইরাল হয়েছে আর সেই ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথে সোশ্যাল মিডিয়ার শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে এক বিদ্যালয় এর শিক্ষিকা ক্লাস রুমে বসে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা করার বদলে এক ছাত্রকে দিয়ে গা হাত পা ম্যাসেজ করাচ্ছেন। ছোট ওই ছাত্রটি শিক্ষিকার আদেশ ম্যাসেজ ও করেও দিচ্ছিল। সম্প্রতি এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে বেশ ভাইরাল হয়েছে এবং ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথে ওই শিক্ষিকার উপরের সবাই চড়াও হয়েছেন।

সূত্রের খবরে জানা গিয়েছে এই ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের হারদোইয়ে এক সরকারি স্কুলপোখারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঘটেছে। আর ওই শিক্ষিকার নাম উর্মিলা সিং। ঘটনাটি সত্যি আমাদের সমাজের কাছে বেশ নিন্দনীয়। তাইতো রাতারাতি ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওটি পৌঁছে যায় বেসিক শিক্ষা অধিকারিক ভি পি সিংহের কাছে। এরপর এই ব্লগ শিক্ষা অধিকারীদের ওই বিষয়টি পুরোপুরি তদন্ত করতে বলা হয়। জানা গেছে বর্তমানে ও শিক্ষিকাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

একজন শিক্ষক-শিক্ষিকার কাজ তার ছাত্র-ছাত্রীকে সঠিক শিক্ষা দেওয়া সঠিক পথের হদিস দেওয়া তার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করে তোলা। কিন্তু ছাত্রছাত্রীরা যদি বিদ্যালয়ে এসে এই ধরনের ঘটনার শিকার হয় তাহলে ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যৎ অন্ধকার। আর শিক্ষক-শিক্ষিকাদের যোগ্যতা নিয়ে এক্ষেত্রে প্রশ্ন ওঠে। আদৌ কি ঐ শিক্ষিকা একজন শিক্ষিকার পদের জন্য উপযুক্ত?

Back to top button