Story

প্রায় ৩ কোটি দামের সাপের চামড়া দিয়ে তৈরি বিশ্বের সবচেয়ে দামি পার্স ব্যবহার করেন মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নীতা আম্বানি! তিনি আম্বানি সাম্রাজ্যে রাণীর মত থাকেন

ভারতবর্ষ তথা গোটা বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন মুকেশ আম্বানি। সেরা ১০ জন ধনী ব্যক্তির তালিকায় তিনি রয়েছেন। মুকেশ আম্বানি কে চেনেন এমন কোন ব্যক্তি আমাদের দেশে নেই। মুকেশ আম্বানির পাশাপাশি তার পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে মাঝেমধ্যে চর্চা চলে। মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নিতা আম্বানি জনসমক্ষে বেশ পরিচিত। রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন’, ‘ধীরুভাই আম্বানি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের’ প্রতিষ্ঠাতা এবং রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক তিনি। সম্প্রতি খবর অনুযায়ী জানা গিয়েছে মুকেশ আম্বানির বর্তমান সম্পত্তির পরিমাণ মোট ৮২.৯ মিলিয়ন।

১৯৮৫ সালে মাত্র কুড়ি বছর বয়সে নিতা আম্বানি মুকেশ আম্বানির সঙ্গে বিয়ে করেন। বর্তমানে তাদের তিন সন্তান রয়েছে আকাশ, ঈশা ও অনন্ত। নিতা আম্বানি বরাবরই ব্র্যান্ডেড এবং দামী দামী জিনিসপত্র ব্যবহারের জন্য খবরের শিরোনামে উঠে আসেন মাঝে মধ্যে। তার পায়ের জুতো থেকে চোখের চশমা পর্যন্ত সবকিছুই ব্র্যান্ড এবং কোটি কোটি টাকা। আজ আমরা কথা বলবো নীতা আম্বানির ব্যবহৃত হ্যান্ড ব্যক্তির নিয়ে।

২০১৫ সালের লেকমির একটি ফ্যাশন শোতে প্রথম নিতা আম্বানি একটি হ্যান্ড ব্যাগ নিয়ে এসেছিলেন। সেই ব্যাগের মূল্য তখন ছিল ৪৮ লক্ষ টাকা। এছাড়াও ২০১৩ সালে নিতা আম্বানি প্রিন্স চার্লসের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে একটি হ্যান্ড ব্যাগ নিয়ে গিয়েছিলেন সেখানে ছিল চোখে পড়ার মতো। কারণ সে হ্যান্ড ব্যাগ টি তৈরি হয়েছিল সাপের চামড়া দিয়ে। এছাড়া ওই ব্যক্তির মধ্যে ২৪০ টি হিরে এবং ১৮ ক্যারেট এর সোনার ব্যবহৃত হয়েছিল। বর্তমান সময়ে এই ব্যাটের মূল্য প্রায় ২.৬ কোটি টাকা।

নীতা আম্বানি ছাড়া হলিউড অভিনেতা কিম কার্দাশিয়ান, ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে মেলেনিয়া ট্রাম্প এবং ভিক্টোরিয়া বেকহ্যামের কাছে এই হ্যান্ডব্যাগ আছে। এছাড়াও নিতা আম্বানি রোদ কার্যকরী ব্যবহার করে তার দাম ৩০ থেকে ৪০ লক্ষ টাকা। এছাড়াও নীতা আম্বানির গাড়ি শখ রয়েছে। তিনি প্রায় মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন নামিদামি কোম্পানির ব্র্যান্ডের গাড়ি কিনে থাকেন। সম্প্রতি একটি নামী ব্র্যান্ডের গাড়ি কিনে শীর্ষে চর্চার শিরোনামে উঠে এসেছিলেন তিনি। গাড়িটি প্রিমিয়াম ব্র্যান্ড অডির। মডেলের নাম অডি এ ৯ চ্যামেলিয়ন।

Back to top button