জেনে নিন কে এই বেলা বোস মিত্র যার নামে তৈরি হয়েছিল ভারতের প্রথম মহিলা নামাঙ্কিত রেল স্টেশন

মহান ব্যক্তিদের নামের রেল স্টেশন ভারতবর্ষে অনেক আছে। পশ্চিমবঙ্গেও তার উদাহরণ কম নেই। ডঃ বিধান চন্দ্র রায়ের নামে বিধান নগর বোধহয় তার সব থেকে বড় উদাহরণ।

কিন্তু কোন মহিলার নামে রেল স্টেশন ভারতবর্ষে এখনো পর্যন্ত খুব কমই আছে। কিন্তু বাংলার বুকে এমনই একজন মহীয়সী মহিলা ছিলেন যার নাম আজও জ্বলজ্বল করছে রেলস্টেশনের ফলকে।

তিনি হলেন বিপ্লবী ঘরের কন্যা বেলা বোস পরবর্তীতে যিনি আজাদ হিন্দ ফৌজের গুপ্তচর প্রধান হরিদাস মিত্রের স্ত্রী বেলা বোস মিত্র হিসেবে পরিচিত হন।

সম্পর্কে তিনি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোসের সেজ দাদা সুরেশ চন্দ্র বসুর ছোট মেয়ে। ১৯২০ সালে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি কোদালিয়া গ্রামে।

মাত্র কুড়ি বছর বয়সে নেতাজির সঙ্গে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে যোগদান করেন তিনি। এরপর আজাদ হিন্দ ফৌজের সমস্ত সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে তাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন বেলা।

আজাদ হিন্দ ফৌজের মহিলা বাহিনী ‘ঝাঁসির রানী’ গঠন করেছিলেন তিনি। পাশাপাশি সমাজকল্যাণমূলক কাজেও নিজেকে জড়িয়ে ফেলেন নিজেকে।

তিনি বালি থেকে ডানকুনি, বিস্তীর্ণ এলাকায় উদ্বাস্তুদের থাকার জায়গা দেওয়া থেকে শুরু করে তাদের খাবারের দায়িত্ব সমস্তটাই একা হাতে পালন করতেন।

অতি পরিশ্রমের ফলে পরে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। ১৯৫২ খ্রিস্টাব্দে মাত্র ৩২ বছর বয়সে মৃত্যু হয় তার। তার ছেলে অমিত মিত্র পশ্চিমবঙ্গের অর্থমন্ত্রী।

আজও কল্যাণী থেকে শুরু করে গয়েশপুর সমস্ত জায়গায় মানুষ তাকে স্মরণে রেখেছেন তার নামাঙ্কিত স্কুল থেকে শুরু করে কলোনি তৈরীর মাধ্যমে।