Story

বলিউডে হয়েছিলেন নোংরামির শিকার! বলিউড ছেড়ে বর্তমানে বৌদ্ধ ভিক্ষুক, বলিউডে টিকতে পারেনি অক্ষয় কুমারের নায়িকা এখন জীবন কাটান বৌদ্ধ ভিক্ষু হয়ে

বলিউডের গ্ল্যামার জগৎ এমন একটি জায়গা যেখানে টিকে থাকতে গেলে লড়াই করতে হয় একাধিক বিষয়ের সাথে। নিজেকে মানিয়ে নেওয়া ekhne খুবই কঠিন। যে লড়াইয়ের ময়দানে টিকে যাবে সে জয়ী আর যে হেরে যাবে তাকে মাঝ পথেই ফিরে যেতে হবে। অনেকেই অর্থ খ্যাতি ইত্যাদির লোভে অভিনয় জগতে পা রাখেন। কেউ মডেলিং দিয়ে কেউবা সরাসরি অভিনয় করতে আসেন এরকম অনেক অভিনেতা অভিনেত্রী রয়েছেন যারা খুব তাড়াতাড়ি দর্শকদের লাইম লাইটে চলে এসেছেন। আবার অনেকেই হাজার চেষ্টা করেও দর্শকের নজর কাড়তে পারেনি, যার ফলে কেউ কেউ অকালেই হারিয়ে গিয়েছেন ইন্ডাস্ট্রি থেকে। এরকম বহু অভিনেতা অভিনেত্রী রয়েছে বলিউডে। আজ আমরা সেরকমই একজন প্রাক্তন অভিনেত্রীর কে নিয়ে কথা বলব।

আজ আমরা যাকে নিয়ে কথা বলব তিনি হলেন বরখা মদন। একসময় বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি জনপ্রিয় মডেল ছিলেন। কিন্তু অভিনয় জগতে আশাই তার কাল ছিল। সালটা ছিল ১৯৯৬, অক্ষয় কুমার রবীনা ট্যান্ডন এবং রেখার সঙ্গে ‘খিলাড়িয়োঁ কা খিলাড়ি’ছবিতে ডেবিউ করেন তিনি। কিন্তু ছবিতে তিনজন বড় বড় সুপারস্টার থাকার কারণে সমস্ত লাইম লাইট তারাই কেরে নেন। ওই বছরই আবার একটি ইন্দো ডাচ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন বরখা। কিন্তু কিছুতেই দর্শকদের নজর কাড়তে পারছিলেন না। ১৯৯৪ সালে সুন্দরী প্রতিযোগিতায় রানার আপ হয়েছিলেন বরখা। তারপর এই মডেলিং জগতে পা রাখেন কিন্তু অভিনয় জগতে আশায়ই তার সর্বনাশ হয়।

রাম গোপাল ভার্মার ‘ভূত’ ছবির মাধ্যমে যাও জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তা ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে। এরপর বাধ্য হয়ে ছোটপর্দা তে ফিরে আসেন তিনি, কিন্তু সেখানে খুব একটা লাভ হয়নি। ধীরে ধীরে মানসিক অবসাদ ঘিরে ধরেছিল তাকে, সর্বশেষে তিনি একটি প্রযোজনা সংস্থা খোলেন। কিন্তু তার অভিনয় জীবনের মত তার প্রযোজনা সংস্থাও ধীরে ধীরে ধ্বংস হতে থাকে। তখনই মানসিক শান্তি খুঁজে বিভিন্ন বৌদ্ধমতগুলিতে ঘুরে বেড়াতেন তিনি। এরপর পরবর্তী কালে তিনি বৌদ্ধ ধর্ম গ্রহণ করেন। নিজের নাম বদলে রাখেন গ‍্যালটেন সামটেন। এরপর সম্পূর্ণরূপে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে পরিণত হন। তার পরনে থাকে সবসময় বৌদ্ধ ভিক্ষুকের পোশাক আর এতেই আলাদা মানসিক শান্তি খুঁজে পেয়েছেন তিনি।

Back to top button