টলিউড

সৌমিত্রিশা কে হারিয়ে দিলো শ্বেতা? কোনো ছোট পোশাক পড়বেন না শর্ত দিয়ে ‘চিরদিন‌ই তুমি যে আমার’ ফিরিয়ে ‘প্রজাপতি’ ছবিতে রাজি ‘যমুনা ঢাকি’র শ্বেতা! দেবের নায়িকা হতে রাজি হয়েছেন তিনি শেষমেশ

সিঁদুরখেলা, তুমি রবে নীরবে, জড়োয়ার ঝুমকো, যমুনা ঢাকির মত সাতটি ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্বেতা ভট্টাচার্য। আট নম্বর ধারাবাহিকের প্রস্তাব‌ও এসেছিল তার সামনে, কিন্তু সকলকে চমকে দিয়ে অভিনেত্রী ৮ নম্বর ধারাবাহিকে কাজ করার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে রাজি হলেন বড় পর্দায় ডেভিউ করতে। হ্যাঁ অভিজিৎ সেন পরিচালিত নতুন ছবি প্রজাপতিতে শ্বেতাকে দেখা যাবে দেবের বিপরীতে, দেবের নায়িকা হিসেবে এই ছবিতে কাজ করবেন। বড় পর্দায় প্রথম কাজ তাও আবার দেবের নায়িকা, এই প্রসঙ্গে যমুনা খ্যাত শ্বেতা বলেন, “স্বপ্ন সত্যি হলো মনে হচ্ছে, প্রথম যখন ব্যাপারটা শুনি চমকে গিয়েছিলাম।”

এই ছবিতে দেব এবং শ্বেতার নতুন জুটি ছাড়াও আরো এক জনপ্রিয় জুটিকে দেখা যাবে। দীর্ঘ ৪৬ বছর পর একসাথে অভিনয় করবেন মিঠুন চক্রবর্তী ও মমতা শঙ্কর। এর আগে মৃগয়া ছবিতে একসাথে দেখা গিয়েছিল মিঠুন এবং মমতা শংকর কে। সেই পুরনো জুটি আবার ফিরে আসছে এই ধারাবাহিকে। এই ছবির প্রযোজক হলেন অতনু রায় চৌধুরী এছাড়া আরও চমক হলো এই যে, এই ছবির অন্যতম প্রযোজক দেব‌ও! অর্থাৎ দুই ভূমিকাতেই এই ছবিতে দেব কে দেখা যাবে।

মূলত একটি বাবা ছেলের গল্প ‘প্রজাপতি’। এই ছবিতে শ্বেতাকে নায়িকা হিসেবে নির্বাচন করা প্রসঙ্গে পরিচালকের কথায়, দেবের বিপরীতে নায়িকা হিসেবে এইবার যাকে দেখা যাবে তার চরিত্রটা ঠিক প্রথাগত নায়িকার মত হবে না, তাই তিনি এবং প্রযোজক দুজনেই দেবের বিপরীতে নতুন কাউকে খুঁজছিলেন। তবে শ্বেতাকে খুঁজে বের করার পুরো ক্রেডিট ছবির প্রযোজক অতনুর।

অতনু রায় চৌধুরী বলেন, “আমি খুব একটা সিরিয়াল দেখি না, একদিন হঠাৎই ‘যমুনা ঢাকি’ দেখছিলাম, তখন মনে হলো শ্বেতাকে আমাদের ছবিতে ভালো মানাবে।” আর পরিচালক অভিজিৎ সেন বলেন,“ কোন চরিত্রে কাকে মানাতে পারে এটাও অতনুদার চেয়ে বোধহয় ভালো কেউ জানে না।” শ্বেতা এর আগে কোনদিনও বাংলা ছবি করেন নি। যদিও রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ এর অফার এসেছিল তার কাছে কিন্তু তখন তিনি মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলেন না, এরপরও অনেক বড় বড় ছবির অফার তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। কারণ তার নিজস্ব কতগুলি শর্ত ছিল, তিনি ঘনিষ্ঠ দৃশ্য কোনদিন করবেন না এবং ছোট খাটো পোশাক, স্লিভলেস পোশাক পরতেও তার ঘোর আপত্তি ছিলো। সেই সমস্ত শর্ত বজায় রেখেই এই ছবিতে নামতে রাজি হয়েছেন অভিনেত্রী। অভিনেত্রীর কথায়,“ অভিজিৎদার পরিচালনা ও অতনু দার প্রযোজনা এবং দেবদার নায়িকা এই তিনটি কারণে আমি ছবিটা বেছেছি। আর এখানে নিজের শর্তে অভিনয় করতে পারছি আমার এখনো ছোট পোশাক পরতে সমস্যা রয়েছে ভবিষ্যতেও থাকবে। যাতে স্বচ্ছন্দ ন‌ই তেমন কিছু পরে নিজের পারফরম্যান্স কেন খারাপ করবো?” এই ছবি দিয়ে ছোটপর্দা থেকে বড় পর্দায় যেমন পা দেবেন শ্বেতা, তেমনি এই ছবি দিয়েই সুরকার হিসেবে নিজের জার্নি শুরু করবেন ‘সারেগামাপা’ খ্যাত রথীজিৎ ভট্টাচার্য।

Back to top button