টলিউড

বাংলা ছবি ঘিরে রাজনীতির শেষ নেই! SVFএর নিজেদের ছবি ‘কুলের আচারে’র জন্য হল পেল না স্বস্তিকার ‘শ্রীমতি’! এ কেমন বিচার? প্রশ্ন তুললেন স্বস্তিকা

দীর্ঘ সময় পর নারী কেন্দ্রিক ছবি ‘শ্রীমতী’র মাধ্যমে আবার‌ও বড় পর্দায় ফিরেছিলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। এই ছবি নিয়ে তাই ভক্ত মহলের মধ্যে যেমন আনন্দ উন্মাদনা ছিলো, তেমনি আনন্দ ছিল অভিনেত্রী নিজেরও। তাই প্রায় প্রতিদিনই তিনি হল ভিজিট করতেন। কথা বলতেন, ছবি তুলতেন নিজের ভক্তদের সাথে। সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ রাখলেই তাই চারিদিকে চোখে পড়ে ‘শ্রীমতী’ নিয়ে কথাবার্তা। নারী কেন্দ্রিক এই ছবির একটা আলাদা ভিউজ ছিল। কিন্তু সম্প্রতি এক বিস্ফোরক দাবি করেছেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়।

বাংলা ছবির হল না পাওয়া নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তিনি। হল না পাওয়ার জন্য দায়ী করেছেন ডিস্ট্রিবিউটরদেরকে, সোজাসুজি বলেছেন, যেটা করা হয়েছে সেটা ঠিক নয়, অন্যায়। ডিস্ট্রিবিউটর কে আর কেউ নয় এসভিএফ। কিন্তু তবুও সত্যি কথা বলতে পিছ পা হন নি স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। শুক্রবার রাত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার একটি পোস্টে তিনি লেখেন, “বাংলা ছবি দেখুন বাংলা ছবি সাপোর্ট করুন কিন্তু কে কীভাবে করবে ডিস্ট্রিবিউটর যে ছবি চালাতে চাইবে সেই ছবি চলবে। নতুন প্রডিউসার হলে তাকে কোনরকম জায়গা দেওয়া হবে না। উঠতি ডিরেক্টর হলে তাকে পাত্তা দেওয়ার দরকার নেই। আর নারীকেন্দ্রিক ছবি হলে তো প্রথম থেকেই বাদের খাতায়, ভালো সেল হলেও মানুষ উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেও রিভিউ ফিডব্যাক সব দারুণ হলেও তাতে কি হল দেওয়া হবে না। আর দেওয়া হলেও এমন শো টাইম দেওয়া হবে যাতে কেউ না যেতে পারে। সেল তলানিতে ঠ্যাকে এবং তৃতীয় সপ্তাহে ছবি উঠিয়ে দেওয়া যায়। শ্রীমতির কপালেও এটাই হলো।”

অভিনেত্রী বলেছেন প্রথম সপ্তাহে শ্রীমতির 17 টা হল ছিল আর দ্বিতীয় সপ্তাহে সেটা চারটে হয়ে দাঁড়ায় তাও সমস্ত শো দুপুরে। এস ভি এফ এর নাম করে স্বস্তিকা লেখেন কাল পিভিআর ডায়মন্ড প্লাজা বিকেল চারটে কুড়ির শোতে ১০০ জনের ওপরে দর্শক ছিল। কিন্তু তাও আজকে থেকে একটাই শো দুপুরে, কোটি কোটি টাকা খরচ করে ছবি বানানো হয়। কিন্তু তাকে দুটো উইক সময় দেওয়া হবে না আমাদের ডিস্ট্রিবিউটার এসভিএফ।আমাদের ডিস্ট্রিবিউটর এস ভি এব তাদের নিজেদের প্রযোজিত ছবি এল আজ। তাই সব ভালো শো তাদের। এটাই তো হয়ে এসেছে এটাই হবে। যাক আপনারা আপিহ কামাই করে আর মা, মাসি, দিদারা সব কাজ ফেলে রেখে দুপুরবেলা শ্রীমতি দেখতে যাবেন না। পরের সপ্তাহে এমনিও উঠিয়ে দেবে। ব্যাস বাংলা ছবিকে এই ভাবেই বাংলা ছবির ডিস্ট্রিবিউটাররা সাপোর্ট করবে। শুধু মন দিয়ে অভিনয় করলে হবে? ছবি চলতে দেবে না তাই নিয়েও যুদ্ধ করতে হবে। কারো কিছু হবে না। আপনাদের ভালোবাসা মনে রাখবো আশীর্বাদ করুন যাতে আরো যুদ্ধ করার জোর পাই।”

Back to top button