টলিউড

সারমেয় খুনের অভিযোগে রেড ভলেন্টিয়ার শশাঙ্কের জুটলো চড় লাথি থাপ্পর! এক মহিলা রাস্তার মাঝে দাঁড় করিয়ে তাকে একের পর এক চড় মারলেন, রইলো ভিডিও

বেশ কিছুদিন ধরেই চলছে সারমেয় দত্তক নিয়ে খুনের অভিযোগ। যেই সারমেয় দত্তক নেয়ার জন্য অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের সঙ্গে ডেটে গিয়ে ছিলেন তাকে খুন করেছেন শশাঙ্ক ভাবসর। ঠিক এমনটাই দাবি জানিয়েছেন দময়ন্তী সেন। এই প্রসঙ্গে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

সুদূর সুইজারল্যান্ড বসে থেকে এই কাণ্ড নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন পোষ্টের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি। এমনকি অভিনেত্রীকে দেখা গেছে বারবার শশাঙ্কের সাথে দেখা করার আক্ষেপ করতে। গতকাল থেকেই সামাজিক মাধ্যমে শশাঙ্ক এবং অভিনেত্রীকে নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠেছে। এই সারমেয় খুনের আগুনে ঘি ঢেলে দিল আর এক ভাইরাল ভিডিও।

যে ভিডিওতে চোখ রাখলে দেখা যাচ্ছে শশাঙ্কের বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন পাড়ার গোটা লোক এই ঘটনার প্রতিবাদ করেছেন। শশাঙ্কের বিরুদ্ধে যে সারমেয় খুনের অভিযোগ উঠেছে তা তারা নস্যাৎ করে দিতে চাইছেন বারবার। পশুপ্রেমী মহিলা দময়ন্তী সেন মারধর করছেন শশাঙ্ককে। পশুপ্রেমী ফোরামের সদস্যরা আড়িয়াদহ তে শশাঙ্কের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখায় এবং তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আসা হয় তারপর চড় লাথি ইত্যাদি চলতে থাকে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি হয় ব্যাপক উত্তেজনা। তারপরে দুই তরফ থেকেই বেলঘড়িয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় বেশ আহত শশাঙ্ক। এক সংবাদমাধ্যম থেকে তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে শশাঙ্ক সাফ জানিয়ে দিয়েছেন,‘গোটা বিষয়টা নিয়ে মানসিক দিক থেকে বিপর্যস্ত। কথা বলার অবস্থায় নেই।’

অভিনেত্রীর ফেসবুক পোস্টে চোখ রাখলে দেখা যাচ্ছে, “কারও নিজের বাচ্চা মারা গেলে সে মাথা ঠান্ডা রাখতে পারত কি? না আমি জাস্টিফাই করছি না। যাঁরা ওই ছেলেটাকে মেরেছে তাঁদের। কিন্তু জানেন তো, এই নোংরা রাস্তার কুকুরগুলো, আমাদের সন্তানসম, তাই সন্তানের মৃত্যুতে তারা জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়েছিল। আপনাদের হলে আপনারা কী করতেন?”

এই প্রসঙ্গে অভিনেত্রীর আরো সংযোজন,‘আমাকে কে কী বলল, তাতে সত্যি আমার কিছু যায়ে আসে না। যখন সবাই দলে দলে তৃণমূল, বিজেপিতে যোগ দিচ্ছিল, তখন শ্রীলেখা ছিল সিপিআইএমের প্রচারে। তাই নিজেকে ছাড়া কারও কাছে কৈফিয়ৎ দেওয়ার প্রয়োজন নেই।’

Back to top button