টলিউড

পাভেলের নতুন চমক ‘কলকাতা চলন্তিকা’! পোস্তা ফ্লাইওভার ভেঙে যাওয়ার পর শহরের ছন্দে ফেরার গল্প বলবে এই ছবি, নতুন মুখ শতাব্দী চক্রবর্তী এবং কিরণ দত্ত

একটু অন্য ধরনের গল্প বলেন তিনি। শহরের আনাচে কানাচে লুকিয়ে থাকা সত্যি গুলো তুলে ধরেন দর্শকের সামনে। কলকাতার প্রতিটি রাস্তায় হেঁটে ফেলেছেন তিনি। নিজের মনে শহরটাকে করেছেন নজরবন্দি। তিনি টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় পরিচালক পাভেল।

আবারো দর্শকদের জন্য নতুন ছবি ‘কলকাতা চলন্তিকা’ নিয়ে আসতে চলেছেন তিনি। পোস্তা ফ্লাইওভার ভেঙে পড়েছিল এই শহর কলকাতাতে। সেই প্রেক্ষাপটেই তৈরি এই ছবি। এই ছবির চিত্রনাট্য ও সংলাপ তিনি নিজেই লিখেছেন। গল্পটি একইসাথে লিখেছেন, অধ্যাপিকা স্বাতী দাশগুপ্ত ও পাভেল।

সাধারণত সত্যি ঘটনার উপর নির্ভর করে ছবি বানাতে পছন্দ করেন পাভেল। দেশপ্রিয় পার্কে দুর্গাপুজো ব্যান, পোস্তা ফ্লাইওভারের ভেঙে পড়া এই সমস্ত ঘটনাগুলোর ডকুমেন্টেশন তৈরি করা নিজের দায়িত্ব বলে মনে করেন পরিচালক। তিনি আরো জানান, পোস্তা ফ্লাইওভার কার দোষে ভেঙেছে, ভেঙে যাওয়ার কি কি কারণ সেই নিয়ে ছবিটি তৈরি হচ্ছেনা। পোস্তা ফ্লাইওভার ভেঙে যাওয়ার পর জীবনে কিভাবে নতুন করে রাস্তা তৈরি হচ্ছে তার উপর নির্ভর করেই তৈরি হচ্ছে ছবিটি।

সোজা ভাষায় বলতে গেলে মানুষের ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প এটি। ঐ ভয়ানক পরিস্থিতি থেকে মূলস্রোতে ফেরার গল্প ‘কলকাতা চলন্তিকা’। পরিচালক এবং কলকাতার প্রেম কাহিনী তার এই নতুন ছবি ‘কলকাতা চলন্তিকা’। এই ছবিটি মুক্তি পাবে ‘বাবা ভূতনাথ এন্টারটেনমেন্ট’-এর ব্যানারে। ছবির প্রযোজক শতদ্র চক্রবর্তী।

পরিচালক জানান যেদিন পোস্তা ফ্লাইওভার ভেঙে পড়েছিল, ঐ সময় তার এক কাকা শোভাবাজার চত্বরে ছিলেন। ঐদিন তার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছিলনা। পরে অবশ্য তিনি নিজেই ফোন করে জানিয়েছিলেন তিনি ঠিক আছেন। আরো বলেন, “আমার বান্ধবী দেবাঞ্জনার বাড়ি পোস্তা ফ্লাইওভারের কাছে। ও বলে, আজও নাকি রাতের দিকে ওরা বিভিন্ন আওয়াজ, আর্তনাদ শুনতে পায়। হয়তো কল্পনা মনে হবে। কিন্তু যারা সে দিন ফেরেনি তাদের আর্তনাদগুলো, তাঁদের চিৎকারগুলো ওইখানে না থাকলেও, তাঁদের বাড়িতে; এই শহরের বুকে আছে।”

এই ছবিতে, অপরাজিতা আঢ্য, অনির্বাণ চক্রবর্তী, রজতাভ দত্ত, খরাজ মুখোপাধ্যায়, শঙ্কর দেবনাথ, বিশ্বরূপ বিশ্বাস, কিরণ দত্ত, দিতিপ্রিয়া রায়, সৌরভ দাস, ইশা সাহা, শতাব্দী চক্রবর্তী প্রমুখ অভিনেতা-অভিনেত্রীদের দেখা মিলবে পাভেলের ‘কলকাতা চলন্তিকা’য়। জানা গেছে, এই ছবির সমস্ত শুটিং একেবারে শহর কলকাতার বুকে রিয়েল লোকেশনেই করা হয়েছে। বলাই যায় আবারো এক নতুন স্বাদের ছবি নিয়ে দর্শকদের সামনে খুব শীগ্রই হাজির হতে চলেছেন পরিচালক পাভেল।

Back to top button