টলিউড

‘পদাতিকে’ চঞ্চলের বিপরীতে গীতা সেনের ভূমিকায় মনামী! চরিত্রটি পাওয়ার পর একই সাথে আনন্দিত ও চিন্তিত হয়ে পড়েছেন অভিনেত্রী!

টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রির জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন মনামী ঘোষ। বিন্নি ধানের খই থেকে শুরু করে ইরাবতীর চুপকথা সমস্ত ক্ষেত্রেই লিড রোলে অভিনয় করে দীর্ঘ সময় ধরে দর্শকদের মনোরঞ্জন করে গিয়েছেন এই অভিনেত্রী। ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দাতেও তিনি নিজের অভিনয় দক্ষতা ফুটিয়ে তুলেছেন। বর্তমানে রিয়ালিটি শো তে বিচারকের আসনে দেখা যায় তাকে। তবে খুব শিগগিরই মনামিকে আবার বড় পর্দায় দেখা যাবে তবে এইবার তাকে গীতা সেনের ভূমিকায় ‌দেখা যাবে- যা নিয়ে অভিনেত্রী ভীষণ রকম উচ্ছ্বসিত।

সৃজিৎ মুখোপাধ্যায়ের পদাতিক ছবিটি হলো মৃণাল সেনের বায়োপিক। এই ছবিতে মৃণাল সেনের ভূমিকায় থাকবেন চঞ্চল চৌধুরী আর মৃণাল সেনের স্ত্রী গীতা সেনের ভূমিকায় দেখা যাবে মনামীকে। এই বিষয়ে অভিনেত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান যে, “সৃজিতদার সঙ্গে এটা আমার প্রথম কাজ।

উনি আমায় ওর অফিসে ডেকে পাঠিয়েছিলেন যখন গিয়ে সবটা শুনি নিজের কানকে বিশ্বাস করতে পারি নি। খালি আনন্দে নাচা বাকি ছিল, তবে ভয়ও করছে একই সঙ্গে। সৃজিতদা আসলে খুব বড় চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন”- অভিনেত্রীর মনে এখন একটাই ভয় কাজ করছে তিনি পরিচালকের বিশ্বাস রাখতে পারবেন তো? এরকম একটা চরিত্রকে জীবন্ত করতে পারবেন তো তার অভিনয় গুনে?

গীতা সেনের ভূমিকায় মনামীকে নেওয়ার সবথেকে বড় কারণ হলো তার ছোটখাটো চেহারা। মনামীর ছোটখাটো চেহারার জন্য‌ই সে কাজ পেয়েছে এই রোলে। শোনা যাচ্ছে যে গীতা সেনের চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলবার জন্য মনামীকে প্রস্থেটিক মেকআপের সাহায্য নিতে হবে , তবে এই মেকাপে অভিনেত্রী কে ভালো মানিয়ে গেছে বলেও শোনা যাচ্ছে। মনামী যদিও এই বিষয়ে এখনো অবধি মুখ খোলেন নি, অভিনেত্রী শুধু বলেছেন এই কাজটি নিয়ে তিনি এবং তার গোটা পরিবার একই সাথে আনন্দিত ও চিন্তিত।

একই সাথে অভিনেত্রী বলেছেন যে, “ সৃজিতদা একটি ভিডিও ক্লিপ দিয়েছেন সেখানে গীতা সেন কে অল্প সময়ের জন্য দেখা গিয়েছে। তাছাড়া তার বেশ কিছু সাক্ষাৎকার রয়েছে”অভিনেত্রী আরো বলেছেন যে, এই খবর শোনার পর থেকেই মনামী চেষ্টা করছেন ভেতর থেকে গীতা সেন হয়ে ওঠার। তবে তিনি কতটা পারবেন সেটা নিয়ে তিনিও চিন্তিত!

Back to top button