টলিউড

বিয়ের পর পদবী পরিবর্তন করতে নারাজ মধুমিতা, বিরক্ত ‘শ্বশুর-শাশুড়ি’!

আমরা ছোট থেকেই দেখে আসছি আমাদের সমাজে বিয়ের পর মেয়েদের পদবী পরিবর্তন হয়েছে। ছেলের বাড়ির পদবীর সঙ্গে বিয়ের পর মেয়ের পদবী বদলে যায়। কিন্তু বিয়ের পর মেয়েদের পদবী বদলানো কি সত্যিই প্রয়োজন? এই প্রশ্ন নিয়ে আসছে পরিচালক সুদীপ দাসের আগামী ছবি ‘কুলের আচার’। আগামী ১৫ই জুলাই মুক্তি পাবে এই ছবি। ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে জনপ্রিয় অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার এবং তার বিপরীতে অভিনয় করছেন জনপ্রিয় অভিনেতা বিক্রম চ্যাটার্জী।

এই ছবির হাত ধরেই দীর্ঘদিন পর বড়পর্দায় ফিরছেন অভিনেত্রী ইন্দ্রানী হালদার। ছবিতে ইন্দ্রানী হালদার বিক্রম চ্যাটার্জী এবং মধুমিতা সরকারের শাশুড়ির ভূমিকায় অভিনয় করছেন। ইন্দ্রানী হালদারের বিপরীতে অভিনয় করতে দেখা যাবে নীল মুখোপাধ্যায় কে। আজই মুক্তি পেয়েছে এই ছবির প্রথম পোষ্টার। ছবিতে মধুমিতা এবং বিক্রমকে পাশাপাশি হাত ধরে দেখা গিয়েছে এবং তার পেছনেই রয়েছে ইন্দ্রানী এবং নীল।

ছবিতে মধুমিতা চরিত্রের নাম মিঠি। হাসি খুশি, মিষ্টি একটি মেয়ে বিয়ের পর বিক্রমের পদবী ব্যবহার করতে নারাজ। সে চায় তার বিয়ের আগের পদবী ব্যবহার করবে। তার এই সিদ্ধান্তে পাশে থাকে প্রীতম কিন্তু তার এই সিদ্ধান্তে বেঁকে বসে তার শ্বশুর শাশুড়ি অর্থাৎ প্রীতমের মা বাবা।

গল্পে দেখা যাবে ইন্দ্রানী হালদারের চরিত্র একজন সাধারন গৃহবধূর। যিনি পরিবারের সকলকে খুব স্নেহ ভালোবাসা দিয়ে আগলে রাখেন। মিঠি কেও খুব ভালোবাসেন তিনি। কিন্তু মিঠির পদবী পরিবর্তন না করান নিয়ে তিনি বৌমার সঙ্গে সহমত নয়। আর এই প্রসঙ্গে প্রীতমের বাবা খুবই বিরক্ত। এবারে দেখার অপেক্ষা সকলের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে নিজের বাপের বাড়ির পদবী কি ব্যবহার করতে পারবে মিঠি।নাকি শ্বশুর বাড়ির চাপে তাকে পদবী পরিবর্তন করতে হবে বিয়ের পর।

Back to top button