টলিউড

সুপারস্টার হয়েও সাধারণ মানুষের মতো রাতের বর্ধমানে অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলার ‘রোম্যান্টিক রাইড’, অবাক সাইকেল আরোহীরা

প্রিয় মানুষের সাথে লংড্রাইভে যেতে কে না চায়। তবে সেই লং ড্রাইভ যদি হয়, গাড়ির বদলে সাইকেলে? আর যদি তা হয় মধ্য রাতের বর্ধমান নগরী? রোমাঞ্চের সাথে রোমান্স মিলেমিশে একেবারে একাকার হতে বাধ্য।

শীত পড়বে পড়বে করছে। একটা হালকা গা শিরশিরানি ভাবও রয়েছে বাতাসে। রাতের বর্ধমান নগর একেবারে নিশ্চুপ। সেই সময় হঠাৎই বর্ধমানের রাস্তায় দেখা গেল দুই সাইকেল আরোহীকে। একজন পুরুষ অপরজন মহিলা। তাদের মুখ ঢাকা রয়েছে মাস্কে। কিন্তু তাদের যেন খুব চেনা চেনা লাগছে দেখতে। আসলে তারা কারা?

তারপর সেই দুই জন সাইকেল আরোহী মুখ থেকে মাস্কের আবরণ সরিয়ে ফেললেন। একি! এ তো আমাদের চেনা পরিচিত দুই বড় পর্দার জনপ্রিয় তারকা। একজন হলেন হ্যান্ডসাম অঙ্কুশ হাজরা এবং অপরজন হলেন দুষ্টু মিষ্টি নায়িকা ঐন্দ্রিলা সেন। তাদের প্রেম কাহিনী বিষয়ে কে না জানে! তাই প্রেয়সীকে নিয়ে অঙ্কুশ একেবারে হাজির হয়েছিলেন বর্ধমান শহরে রাতের বর্ধমান ঘুরিয়ে দেখাতে।

উনিশ এর দশকের শেষের দিকে বর্ধমানেই জন্ম অঙ্কুশের। সেখানেই তার পড়াশোনা বেড়ে ওঠা যাবতীয় সবকিছু। তারপর কলেজে উঠার পর তিনি হঠাৎ সেখান থেকে কলকাতা চলে আসে এবং ভাগ্যের চক্করে পদার্পণ করেন টলিউডের রুপলী জগতে। সেখান থেকে তিনি এখন হয়ে উঠেছেন বাংলা সিনেমার এক জনপ্রিয় নায়ক। বর্তমানে কলকাতাতেই থাকেন তিনি তবুও মাতৃভূমিকে কি ভোলা যায়? তাই ঐন্দ্রিলা কে নিয়ে হাজির হয়েছিলেন তিনি বর্ধমানে। অবশ্য এটা উল্লেখ করা দরকার যে তিনি সম্প্রতি বর্ধমান এ একটি ফ্ল্যাটও কিনেছেন। আসলে নিজের জন্মভূমিতে থাকার সুখই আলাদা।

তার সাইকেল রাইডের সেই পোস্ট করা ভিডিওতে তাকে এবং ঐন্দ্রিলা কে দেখা গেছে বেশ ফুরফুরে মেজাজে। তিনি ক্যাপশনে লিখেছেন , ” রাতের বর্ধমান ঘুরে দেখা ।” সম্প্রতি রোম থেকে ঘুরে এসেছেন দুই কপোত কপোতী। তাও আবার পুজোর আগেই। ইতিমধ্যে নতুন কাজে লেগে পড়েছেন অঙ্কুশ। সম্প্রতি আবার প্রিয়াঙ্কা সরকারের সাথে তারা আগামীকালের শুটিং সেরে এসেছেন রামপুরহাট থেকে। হাতে এখনো মির্জা সহ আরো একগাদা ছবি রয়েছে তার।

Back to top button