টলিউড

‘অধিকাংশ সময় বিছানাতেই থাকতে হত, ভাবতাম কখন যন্ত্রণা শেষ হবে’, মানসিক অবসাদ নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী ঋতাভারী

সম্প্রতি অভিনেত্রী ঋতাভরী অনুরাগীদের সাথে একটি প্রশ্ন উত্তর খেলায় মগ্ন হন। যেখানে তিনি তার অবসাদগ্রস্থ লাইফের কথা অনুরাগীদের সাথে ভাগ করে নিয়েছেন। অভিনেত্রী স্বভাবতই বেশ প্রাণবন্ত সামাজিক মাধ্যমে বেশ সক্রিয় তিনি। মাঝে মধ্যে এরকম খেলায় অভিনেত্রীকে মগ্ন থাকতে দেখা যায়।

সম্প্রতি অভিনেত্রী একটি জিন্স টপ পরে ছবি পোস্ট করেছেন এবং সেখানেই তিনি জানিয়েছেন তার মানসিক অবসাদগ্রস্ত দিনগুলির কথা। অভিনেত্রী ক্যাপশনে সব কিছু পরিষ্কার করে লিখেছেন। অভিনেত্রী ক্যাপশনে জানিয়েছেন, “একটা সময় ছিল যখন আমি প্রচণ্ড ডায়েট মেনে চলতাম। শরীরে মেদ জমেছে কি না তা দেখতে রোজ আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতাম। গত ৮ মাস আগে পর পর দুটো অস্ত্রোপচার হয় আমার। এরপরই শরীরে পরিবর্তন আসে আমার।”

তবে এখানেই শেষ নয়, অভিনেত্রীর আরো সংযোজন, ‘২০১৩ সাল থেকে আমি অনেক ডায়েট ও ওয়ার্কআউট মেনে চলতাম। মেদ জমেছে কি না দেখার জন্য রোজ আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতাম। শরীরে মাপ ৩৬-২৬-৩৬ আছে কিনা তা নিয়ে খুব সতর্ক ছিলাম। কিন্তু ৮ মাস আগে আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি এবং দুটো সার্জারি হয়। এই সময়ে আমি নড়তেও পারতাম না। অধিকাংশ সময় বিছানাতেই থাকতে হত। ভাবতাম কখন যন্ত্রণা শেষ হবে’।

অস্ত্রোপচারের পর তিনি কি কি মানসিক অবসাদ গ্রস্থ পর্যায়ের মধ্য দিয়ে গেছেন সেটিও স্পষ্ট ভাবে লিখে জানিয়েছেন, ‘অস্ত্রোপচার সফল ভাবেই হয়েছে। কিন্তু এর জেরে অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়ি, যা কাটিয়ে ওঠার এখনও চেষ্টা করছি। আমি নিজেকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে, অবসাদ কাটিয়ে উঠতে সময় লাগতে পারে। কিন্তু আমার উচ্চাকাঙ্খা ও কর্মপ্রেম সত্ত্বার ধৈর্য্য কম। এ‌টা পোস্ট করার কারণ, তোমাদের বলতে চাই শারীরিক যন্ত্রণা নয়, মানসিক অবসাদ থেকে সেরে ওঠার চেষ্টা করছি। অবসাদ আমায় সবকিছু থেকে চুপ করিয়ে দিয়েছিল’।

অভিনেত্রীর আরো সংযোজন, ‘সবসময় পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ। আমি তোমাদের ভালবাসি এবং তোমাদের ভালবাসাকে মর্যাদা করি। আমি পর্দায় খুব বড় ভাবে তাড়াতাড়ি ফিরব। কিন্তু এখন শুধু সুস্থ হতে চাই নিজেকেই আরও ভাল করে গড়ে তুলতে চাই’।

Back to top button