“আমাকে পড়তে যেও না,স্নাতক হবে না”, ব্যাকলেস ব্লাউজের ছবি দিয়ে বিতর্কের মুখে নুসরত

নুসরত জাহান—নামটা শুনলেই প্রথমেই যে শব্দ উঠে আসে চোখের সামনে তা হল “বিতর্ক”৷ ভোটে দাঁড়ানো থেকে নির্বাচিত হয়ে সাংসদ হওয়া অবধি বিতর্ক তার পিছু ছাড়েনি৷ এমনকি এখনও সোশ্যাল মিডিয়াতে যখনই ছবি শেয়ার করেন,ভালো—মন্দ মিশিয়ে নানান মন্তব্যে ভরে যায় কমেন্ট সেকশন৷ শনিবার দুপুরে নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যাণ্ডেলে নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন৷ সেখানে ক্যাপশন লেখেন,”আমাকে পড়তে চেষ্টা কোরো না,তুমি স্নাতক হবে না৷”

ঠিক এরপরেই স্বভাবতই ধেয়ে আসে বিভিন্ন মন্তব্যের ঢেউ৷ ছবিটিতে নুসরত পড়ে আছে একটি লাল শাড়ি,ব্যাকলেস ব্লাউজ ,চুল মাথার ওপরে তোলা,মেসি বান৷ চোখে ছিল রোদচশমা,সবমিলিয়ে গ্ল্যামার ঝড়ে পড়ছিল সে ছবিতে৷ গতকাল এই ছবি পোস্ট করার পর থেকেই একের পর এক আসতে থাকে প্রচুর নেতিবাচক কমেন্ট৷

একজন মন্তব্য করেন,”ধন্য পশ্চিমবঙ্গবাসী,এ রকম ট্যালেন্টেড সাংসদ পেয়েছে৷” তবে এ তো কিছুই নয়,একজন লিখেছেন,”কাজ করুন একটু,সাংসদ হয়ে কি করলেন?সাংসদের বেতন নিচ্ছেন মাসে ২.৫লাখ,জনগণের টাকা তো সব মডেলিং করেই ওড়াচ্ছেন৷ পাঁচ বছর এভাবে মানুষের সর্বনাশ করবেন৷” এমনই কড়া মন্তব্যে এদিন ভরে উঠল কমেন্ট সেকশন৷

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Nusrat (@nusratchirps)

এর আগেও টিকটকে কালো ক্রপ টপ পড়ার ফলে তাকে সম্মূখীন হতে হয়েছিল বিভিন্ন কুরুচিকর মন্তব্যে৷ একজন সাংসদ হয়ে কীভাবে এমন ছোট জামাকাপড় পড়েন তা নিয়ে তৈরী হয়েছিল বিতর্ক৷ অনেকে আবার সমাজের দৃষ্টিভঙ্গীকে দায়ী করেছিলেন৷ ট্রোলের শিকার হয়েছিলেন নুসরত এবং পাশাপাশি রেহাই পাননি তার কাছের বন্ধু তথা সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও৷

নেটিজেনদের অনেকাংশেরই দাবী যে নুসরত নামমাত্র সাংসদ,কোনো কাজ করেন না,উল্টে মডেলিং,অভিনয় এসব নিয়েই আছেন৷ তবুও পিছুপা হননা সাহসী নুসরত জাহান৷ তিনি বিতর্কের শিরোনামে থাকতে যেমন বিয়ের পর এক হাত চূড়া পড়ে,মোটা করে সিঁদুর পড়ে পার্লামেন্টে যান,তেমনই সাহসী পোশাকে সোশ্যাল মিডিয়াতেও পোস্ট করেন তার ছবি৷ তবে শনিবার লাল ব্যাকলেস ব্লাউজ পরিহিত নুসরতের ছবির ক্যাপশনের জবাব দিয়ে এক ব্যক্তি চাচাছোলা মন্তব্য করেন,””ঠিক আছে৷কোনো সমস্যা নেই৷ আমি তো কেবল উচ্চমাধ্যমিক পাশ৷”

সবমিলিয়ে সর্বদাই বিতর্ক ঘিয়ে থাকে অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহানকে৷