টলিউড

সোনার মন সুপারস্টার মিমি চক্রবর্তীর! ভাঙড়ে পাঁচ টিবি রোগীকে দত্তক নিলেন মিমি চক্রবর্তী, সাংসদ-অভিনেত্রীর প্রশংসায় স্থানীয়রা

বর্তমানে টলিউডের একজন অন্যতম জনপ্রিয় এবং ট্যালেন্টেড অভিনেত্রী হলেন মিমি চক্রবর্তী শুধুমাত্র অভিনেত্রী নয় বর্তমানে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ সংসদ ও বটে। যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের হয়ে ভোটে দাঁড়ান মিমি। গতকাল ভাঙ্গরের নলমুড়ি ব্লক হাসপাতাল এলাকায় গিয়ে পাঁচজন টিভি রোগীকে দত্তক নিলেন তিনি।

গত শুক্রবার সাংসদ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির সদস্যদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন তিনি। সম্প্রতি মিমি ভাঙড় ১ ব্লকের নলমুড়ি ব্লক হাসপাতাল ও ভাঙড় ২ ব্লকের জিরেনগাছা ব্লক হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান নিযুক্ত হয়েছেন। চেয়ারম্যান হওয়ার পর প্রথমবার তিনি হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠকে যোগ দেন। ওই বৈঠকে প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন সাংসদ।

বৈঠকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ করেন, ব্লক হাসপাতালে অধিকাংশ সময় প্রসূতি মায়েদের অন্যত্র রেফার করে দেওয়া হয়। এর ফলে অনেক মা প্রসবযন্ত্রণা নিয়ে অন্য হাসপাতালে যাওয়ার পথে গাড়িতেই সন্তান প্রসব করে ফেলেন। সাম্প্রতিককালে এই ধরনের ঘটনা বেশ কয়েকবার ঘটেছে বলে তাঁরা দাবি করেন।

এই নিয়ে মিমি স্বাস্থ্য আধিকারিকদের নির্দেশ দেন, এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে। ব্লক এলাকায় প্রায় ৭৩ জন টিবি আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। সেইসব রোগীদের অনেকেই অত্যন্ত গরিব। তাঁদের অনেকেরই দু’বেলা দু’মুঠো ঠিকমতো খাবার পায় না।

এই সমস্ত ঘটনা জানার পর মিমি নিজে পাঁচ জন টিবি আক্রান্ত রোগীকে দত্তক নেন। বিডিও দীপ্যমান মজুমদার দু’জন রোগীকে দত্তক নেন। তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদ দু’জনকে এবং পঞ্চায়েত প্রধান শামসুল আলম ২ জন টিবি আক্রান্ত রোগীকে দত্তক নেন। মিমি চক্রবর্তী অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের অনুরোধ করে এই কাজে এগিয়ে আসার জন্য।

মিমি বলেন, ‘‘প্রসূতি মায়েদের রেফার করা এবং রাস্তায় সন্তান প্রসব হয়ে যাওয়া কোনওটাই কাম্য নয়। চিকিৎসকরা নিশ্চয়ই চাইবেন না কোনও মায়ের ক্ষতি হোক। কিছু অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে স্বাস্থ্য আধিকারিক-সহ সবার সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে।’’

Back to top button