টলিউড

‘আমাদের সময়ে সবথেকে ভাল অভিনেতা ছিল তাপস’, ‘আয় খুকু আয়’ এর প্রচারে স্বর্গীয় বন্ধু তাপস পালের বাড়ি ভুললেন না প্রসেনজিৎ

নব্বই দশকের জনপ্রিয় অভিনেতাদের মধ্যে অন্যতম একজন তাপস পাল। কয়েকবছর হলো অভিনেতা আমাদের সকলকে ছেড়ে পরলোক গমন করেছেন কিন্তু অভিনেতার কাজ এবং অভিনেতা কাউকেই ভুলতে পারেনি মানুষ। তেমনই তাকে ভুলতে পারেননি কাছের বন্ধু প্রসেনজিৎ। তাই নিজের আগামী ছবির প্রচারে বেরিয়ে ভুললেন না তাপস পাল কে। চন্দননগরের ছেলে তাপস পাল। অভিনয় ছিল তার পেশা তার নেশা কিন্তু মৃত্যুর কয়েক বছর আগে তিনি রাজনীতির ময়দানে নামেন। রাজনীতিতে নেমে একাধিক সমালোচনা, কটূক্তির শিকার হতে হয়েছে তাকে। সেসব এখন অতীত। টলি ইন্ডাস্ট্রির কাছের বন্ধুদের মধ্যে বুম্বাদা ছিলেন অন্যতম। কিন্তু বন্ধুর মৃত্যুর পরও বন্ধুকে ভুলতে পারেননি প্রসেনজিৎ। তাই তাপস পালের বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে স্মৃতি চারণ করলেন অভিনেতা।

আগামী জুনের ১৭ তারিখ মুক্তি পেতে চলেছে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এবং দিতিপ্রিয়া রায় অভিনীত ছবি ‘আয় খুকু আয়’। ছবির প্রচারের জন্য শহরের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ছুটে বেড়াচ্ছেন প্রসেনজিৎ। এমনই একদিন ছবির প্রচারের জন্য গিয়েছিলেন চন্দননগর। সেখানে গিয়েই তাপস পালের তালাবন্ধ পৈতৃক বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে স্মৃতিচারণ করেন অভিনেতা।

এক সংবাদ মাধ্যমের সাক্ষাৎকারে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় জানান, ইন্ডাস্ট্রি তে তাপস পাল ছিলেন তার খুব কাছের বন্ধু। যখন প্রথম প্রথম দুজনে কেরিয়ার শুরু করেছিল। তখন আউটডোরের জন‍্য আলাদা গাড়ি পাওয়া যেত না। তাই দুজনে একই গাড়িতে যেতেন। সেখান থেকেই বন্ধুত্ব বাড়ে। চন্দননগরের এই বাড়ি থেকেই বন্ধু তাপসকে গাড়িতে তুলে নিতেন প্রসেনজিৎ। তারপর আবার বাড়িতে নামিয়ে দিয়ে নিজে বাড়ি ফিরতেন। তাপস পালের এই বাড়িতে বসেই খাওয়া দাওয়া করেছেন দুজনে।

এমনকি প্রসেনজিতের মাও তাপস পাল কে ভালবাসতেন। আউটডোরে শুটিং এ গেলে বিরতি না পেলে তাপসের জন্য তিনি খাবার আলাদা করে সরিয়ে রাখতেন। বুম্বাদার সোজাসুজি স্বীকার করে নেন তাঁদের সময়ে তাপস পাল ছিলেন তাঁদের মধ‍্যে সবথেকে ভাল অভিনেতা। নিজের সময়ের থেকে এগিয়ে থাকতেন তিনি। একসঙ্গে বেশ কয়েকটি কাজ করেছেন দুজনে। তাপস পালের শেষের দিকের একটি সিনেমা দেখে নিজেই ফোন করে প্রশংসা করেছিলেন প্রসেনজিৎ। এখনো বুম্বাদার যেকোনো সাক্ষাৎকারেই তাপস পালের কথা ওঠে। দু বছর আগে ছেড়ে চলে গিয়েছেন বন্ধু। আয় খুকু আয় ছবিতে নিজের চরিত্রটি তাঁকেই উৎসর্গ করেছেন প্রসেনজিৎ।

Back to top button