বলিউড

বেড়েছে ওজন, জমা হয়েছে অতিরিক্ত মেদ, ২০২১ সালের মিস ইউনিভার্স হরনাজ কৌর সান্ধু কে হতে হলো একাধিক কটাক্ষে সম্মুখীন

দীর্ঘ ২১ বছর পর অবশেষে ভারতবর্ষের নাম উজ্জ্বল করে মিস ইউনিভার্স এর মুকুট তুলে নিয়েছিলেন পাঞ্জাবের মেয়ে হরনাজ কৌর সান্ধু। আর হরনাজের এই সাফল্যে গর্বিত গোটা দেশ। দীর্ঘ ২১ বছর পর ভারতকে এই খেতাব এনে দিয়েছে পাঞ্জাবের মেয়ে যার ফলে চর্চার শিরোনামে তো সে থাকবেই। একজন সাধারন পরিবারের সাধারণ মেয়ে থেকে বিশ্ব সুন্দরী হয়ে ওঠার গল্প টা এতটা সহজ ছিল না।

লারা দত্ত, সুস্মিতা সেনের পর তিনি ছিলেন তৃতীয় ভারতীয় যার মাথায় এই মুকুট উঠেছে। আজ থেকে প্রায় দুই দশক আগে বলিউড অভিনেত্রী লারা দত্ত ভারতকে এই সম্মানে সম্মানিত করেছিল। ২০১৭ সালে মিস চন্ডিগড় এর খেতাব জিতেছিলেন হরনাজ। এরপর ২০১৮ সালে এমার্জিং ষ্টার শিরোপায় ভূষিত হন তিনি। ২০১৯ সালে ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া পাঞ্জাবের খেতাব জিতে নেন। এরপরই ২০২১ সালে জিতে নেন মিস ইউনিভার্স এর খেতাব।

এরপরে তার সৌন্দর্য রীতিমতো চর্চায় চলে এসেছিল। বলিউডের জনপ্রিয় সুন্দরী অভিনেত্রী উর্বশী রাউতেলা প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছিলেন হারনাজ কে। তার পারফেক্ট সুন্দর ফিগার নিয়ে সকলের মাঝে চর্চা চলছিল তখন। কিন্তু বর্তমানে সেই মিস ইউনিভার্স সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন হাসির পাত্র হয়ে উঠেছে। তাকে নিয়ে চলছে দেদার ট্রোল, সমালোচনা। বিশ্ব সুন্দরীর খেতাব জেতার সময় হারনাজ এবং বর্তমান সময়ের হারনাজের মধ্যে যেন আকাশ-পাতাল তফাৎ রয়েছে।

আসলে বর্তমানে কিছুটা মেদ জমেছে তার শরীরে। যার ফলে তার গাল গুলি ফোলা ফোলা লাগছে এবং এটাই যেন মেনে নিতে পারছে না নেটিজেনদের একাংশ। তাদের মতে তিনি বিশ্ব সুন্দরী মডেল তাকে এই শরীরে মানায় না। তার শরীর হতে হবে ছিমছাম, রোগা যাকে এক কথায় বলে পারফেক্ট ফিগার। যার ফলে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে একাধিক কটাক্ষের সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু হারনাজের ভক্তরা তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে আর ঐ সমস্ত নেটিজেনদের কমেন্টের প্রতিবাদ করেছে।

Back to top button