বলিউড

‘সালমান আমাকে ধোঁকা দিয়েছে’, প্রেমে ভাঙন দেখেছেন বারবার, কেন কারোর সাথে সম্পর্ক টেকেনা ভাইজানের? মুখ খুললেন তারই প্রাক্তন প্রেমিকা সোমী আলি

সালমান খান বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতাদের মধ্যে একজন। বলিউডের মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলরদের মধ্যে তিনি অন্যতম, তা মানেন সকলেই। তবে এখনও তিনি কেন বিয়ে করেননি সেই নিয়ে কৌতুহল রয়েছে অনেকেরই। তাকে সামনে পেলে প্রথম প্রশ্ন থাকে এটাই। তবে নিজের অভিনয় জীবনের শুরুর সময় থেকেই একাধিক বলিউড ডিভাদের সাথে সম্পর্কে জড়িয়েছেন অভিনেতা। তবে কোনটাই বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়নি। তাদের তালিকাও বেশ উল্লেখযোগ্য। সেই তালিকায় রয়েছেন ঐশ্বর্য রাই বচ্চন, সঙ্গীতা বিজলানি, সোমি আলি, ক্যাটরিনা কাইফ এবং বর্তমান প্রেমিকা ইউলিয়া।

এখনো পর্যন্ত কেন বিয়ে করেননি তিনি? এই প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য কৌতুহলী সকলেই। তবে অধিকাংশের মতে, এই প্রশ্নের উত্তর বেশি ভালোভাবে দিতে পারবেন স্বয়ং সালমান খানই। তবে অভিনেতা কখনোই প্রকাশ্যে মিডিয়ার সামনে এই বিষয় নিয়ে কথা বলেননি। কেন বারবার সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভাঙনের মুখমুখি হোতেন তিনি? সেই প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে মুখ খুললেন ভাইজানেরই প্রাক্তন প্রেমিকা সোমি আলি। তার কথা শুনে অবাক হয়েছেন সকলেই। কি বলেছিলেন তিনি?

সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, তিনি আমেরিকা থেকে শুধুমাত্র সালমান খানকে বিয়ে করার জন্য এসেছিলেন ভারতে। সালমান খান অভিনীত ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’ ছবি দেখেই অভিনেতার প্রেমে পাগোল হয়েছিলেন তিনি। আমেরিকা থেকে ভারতে আসার সময় মাকে বলে এসেছিলেন, তিনি মুম্বাই যাচ্ছেন সালমান খানকে বিয়ে করার জন্য। এমনকি তার পার্সেও থাকতো ভাইজানের ছবি। তিনি রীতিমতো ভাইজানকে বিয়ে করবেন সেটা মনস্থির করেই এসেছিলেন।

তার কথা থেকেই জানা গিয়েছে, নেপালেই তারা দুজন মুখোমুখি বসেছিলেন কথা বলার জন্য। সেইসময় সোমি আলি সরাসরি অভিনেতাকে জানিয়েছিলেন তিনি তাকে বিয়ে করতে চান। যার উত্তরে অভিনেতা বলেছিলেন, তার জীবনে প্রেমিকা রয়েছে। এই কথার উত্তর হিসেবে তিনি জানিয়েছিলেন, তাতে তার কিছুই যায় আসে না। এরপর প্রায় একবছর পরে তারা প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। তখনই অভিনেতা সোমিকে জানিয়েছিলেন তিনি তাকে ভালবাসেন। তবে তাদের সম্পর্ক খুব একটা ভালো দিকে এগোয় নি। একে অপরের সাথে সম্পর্ক থাকাকালীন কেউই কারও সাথে মানিয়ে উঠতে পারছিলেন না শেষপর্যন্ত। তাই তারা সেইসময় একে অপরের থেকে আলাদা থাকার ও সম্পর্ক ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর ভারত ছেড়ে তিনি আবারও আমেরিকাতে তার পরিবারের কাছে ফিরে যান, এমনটা তার কথা থেকেই জানা গিয়েছে।

Back to top button