বলিউড

“আমার ছেলে মেয়ে কখনো কোন অন্যায় কাজ করতেই পারে না” নিজের ছেলেমেয়েকে নিয়ে গর্ববোধ করেন অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা

বলিউডের শাহরুখ খান পুত্র আরিয়ান খান মাদকচক্রের জড়িয়ে পড়ার পর বিভিন্ন তর্ক-বিতর্ক উঠে এসেছে। বলিউডের সমস্ত স্টারকিড দের নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন উঠেছে জনসম্মুখে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শত্রুঘ্ন সিনহা কে তার ছেলেমেয়েদের নিয়ে কথা বলতে শোনা গিয়েছে।

অভিনেতা জানিয়েছেন তার মেয়ে সোনাক্ষী সিনহা এবং দুই ছেলে লব কুশ ড্রাগ নেওয়ার মতো কোনো রকম পাপ কাজ করেনি এবং ভবিষ্যতেও করবে না এমনকি আরিয়ান খানের মাদক চক্র নিয়েও তিনি মুখ খোলেন। সাক্ষাৎকারে শত্রুঘ্ন সিনহা কে জিজ্ঞাসা করা হয় যে ব্যস্ত সময়ের মধ্যে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিজের ছেলেমেয়েদের মানুষ করার কি তাদের কাছে চ্যালেঞ্জিং? এর উত্তরে অভিনেতা জানান যে “যত ব্যস্ত সময় থাকুক বা না থাকুক এরকমটা কখনো করা উচিত নয়, সন্তানকে ঠিক পথে নিয়ে যাওয়া দায়িত্ব তার বাবা-মার এমনকি আমি নিজেও তামাক দ্রব্য বর্জন করার ক্যাম্পরী তামাক ইত্যাদি থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দি।”

তিনি আরো বলেন যে “আমি এই ব্যাপারে খুব গর্ববোধ করি যে আমার দুই ছেলে ও মেয়ে খুব ভালো মানুষ হয়েছে, ওদের নিয়ে আমার গর্ব হয় ড্রাগ সেবন করার তো দূর ড্রাগ সেবন করার কথা ভাবা যে পাপ সেটা ওরা ভালো মত জানে। আশা করি ভবিষ্যতেও এই ধরনের কোন কাজ ওরা করবে না এমনকি আমি কোনদিনও কারোর কাছে ওদের নামে এ ধরনের কোনো বক্তব্য শুনিনি।” শত্রুঘ্ন সিনহা জানিয়েছেন যে বাবাদের খেয়াল রাখা উচিত যাতে তাদের সন্তানরা কখনো একা না হয়ে পড়ে তাদের সময় দেওয়া উচিত। যখন সন্তানরা একা হয়ে পড়বে তখনই খারাপ দিক খারাপ সঙ্গে পড়ে যাবে যার ফলে ওরা খারাপ কাজ করে ফেলবে। সকল বাবা-মা দেরি উচিত অন্তত এক বেলা একসঙ্গে সপরিবারে খেতে বসা উচিত তাদের সঙ্গে কথা বলা উচিত।

অভিনেতা জানিয়েছেন “আরিয়ান খান কে ক্ষমা করা উচিত নয় শাহরুখ খানের ছেলে বলে তাকে সমস্ত কিছু থেকে ছাড় দেওয়া একেবারেই উচিত নয়। ন্যায় বিচার হচ্ছে ও যদি কোন দোষ করে থাকে তাহলে তার শাস্তি ঠিকই পাবে।” আরিয়ান খান গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে আরিয়ান খানের পক্ষে ছিলেন শত্রুঘ্ন সিনহা তিনি প্রথম থেকেই জানিয়েছিলেন যে আরিয়ানের বিরুদ্ধে চক্রান্ত চলছে পুরো বলিউড আরিয়ানের বিরুদ্ধে গেলেও তিনি আরিয়ানের পাশেই ছিলেন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Back to top button