ভাইরাল

নাচে-গানে শেষ পিকনিকে মাতিয়েছিলেন অভিষেক! মৃত্যুর আগে অভিষেক চ্যাটার্জীর শেষ পিকনিক ভিডিও ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

অভিষেক চ্যাটার্জী মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা টলিউড ইন্ডাস্ট্রি। কেউই মেনে নিতে পারছে না তার এই হঠাৎ মৃত্যু। মাত্র ৫৭ বছর বয়সে সকলকে ছেড়ে বিদায় নিলেন অভিষেক। চার দশকেরও বেশি সময় ধরে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের অভিনয় দক্ষতায় দর্শককে দারুন দারুন ছবি উপহার দিয়ে এসেছেন অভিনেতা। কখনও নায়ক কখনও খলনায়কের চরিত্রে তাকে আমরা দেখতে পেয়েছি। সম্প্রতি স্টার জলসার খরকুটো ধারাবাহিকে তাকে গুনগুনের বাবার চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছিল। এর আগে স্টার জলসায় মোহর ধারাবাহিক কেও দেখা গিয়েছে তাকে। সকলেই জানতেন প্রাণখোলা হাসি খুশি মানুষ ছিলেন অভিষেক। সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছে তার শেষ পিকনিকের একটি ভিডিও।

ধারাবাহিকের সদস্যদের নিয়ে মার্চ মাসের প্রথমেই পিকনিক করেছিলেন অভিষেক চ্যাটার্জী। সেখানেই হাসি নাচ-গান মজায় মেতে উঠেছিলেন প্রত্যেককে নিয়ে। অভিনেতা নিজেই সেদিন এর মুহূর্তগুলি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করেছিলেন।

অভিনয় করতে বরাবরই ভালোবাসতেন। কিন্তু অভিনয়ের বাইরেও তিনি একেবারে ঘরোয়া মানুষ ছিলেন। তাঁর মেয়ে তার চোখের মনি ছিল তা তার ফেসবুক একাউন্টে চোখ রাখলেই বোঝা যেত। অভিনেতার মৃত্যুর পর তাঁর সহ অভিনেত্রী অভিনেতা প্রত্যেকের থেকেই সাক্ষাৎকারে জানা যায় যে দারুণ প্রাণোচ্ছল প্রাণখোলা হাসি খুশি এবং হৈ-হুল্লোড় প্রবন মানুষ ছিলেন অভিষেক। ঈশ্বরে বিশ্বাসী ছিলেন। নিজে নিত্য পূজা করতেন বাড়িতে। এছাড়াও সকলকে ফ্লোরে দারুণভাবে মাতিয়ে রাখতেন তিনি। পরোপকারী মানুষ ছিলেন সকলের বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়তেন তিনি। সকল অভিনেতা-অভিনেত্রীকে সমান চোখে দেখতেন সকলকেই ভালবাসতেন সম্মান করতেন।

আর সেই প্রাণখোলা প্রাণোচ্ছল মানুষটির ভিতরে যে এরকম কঠিন একটা রোগ বাসা বাঁধছিল ধীরে ধীরে তা আমরা কেউই জানতাম না। তাকে বহুবার তার সহ অভিনেতা অভিনেত্রীরা বলেছিলেন যে এবার বিশ্রাম নিতে তার ওপর শরীরটা তার খারাপ চলছিল তাই বারবার করে তাকে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য উপদেশ দিয়েছিল প্রত্যেকে। কিন্তু তিনি তা শোনেনি। বারবারই প্রত্যাখ্যান করেছেন সেই প্রস্তাব। কাজের থেকে কখনো বিরতি নিতে চাননি তিনি। সবসময় নিজেকে অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত রেখেছেন।

১৯৮৬ সালে কিংবদন্তি পরিচালক তরুণ মজুমদারের হাত ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে আশা তার। তারপর একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়ে গিয়েছেন বাঙ্গালীদের। তরুণ মজুমদার পরিচালিত পথভোলা দিয়ে বড় পর্দায় ডেবিউ করেন অভিষেক। এরপর প্রাণের চেয়েও প্রিয়, গীত সংগীত, তুফান, সুজন সখী, অমর প্রেমের মতো ব্লক বাস্টার হিট ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। আর সেই মানুষের এই হঠাৎ মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা টলিপাড়া।

Back to top button