বাংলার জামাই জেপি নাড্ডা “বহিরাগত” নন, স্ত্রী পুরোদস্তুর বাঙালি

বঙ্গসফরে এসেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা৷ বৃহস্পতিবার একটি রাজনৈতিক কর্মসূচীতে যোগ দিতে নাড্ডা ডায়মণ্ড হারবার যাচ্ছিলেন, পথে হামলা হয় তার কনভয়ে৷ গাড়ির কাচ অবধি ভাঙচুর করা হয়৷ তবে তার গাড়ির কাচ বুলেট প্রুফ হওয়ায় ক্ষতি হয়নি৷ তার দাবী সাধারণ কাচ হলেই সাংঘাতিক কিছু ঘটে যেতে পারত৷

কনভয়ে যারা হামলা চালায় তাদের তৃৃণমূল আশ্রিত গুণ্ডা বলে অভিযোগ করে বিজেপি৷ এরপরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কনভয়ে হামলা প্রসঙ্গে জেপি নাড্ডাকে “বহিরাগত” বলে উল্লেখ করেন৷ তবে আদতে কি তিনি বহিরাগত? একেবারেই নয়৷ বরং তিনি এই বাংলারই জামাই৷ জেপি নাড্ডার স্ত্রী মল্লিকা নাড্ডা পশ্চিমবাংলারই মেয়ে৷ বিয়ের আগে তার পদবী ছিল মুখোপাধ্যায়৷ মল্লিকার বাবার নাম সুভাষচন্দ্র মুখোপাধ্যায় আর মা জয়শ্রী মুখোপাধ্যায় তবে কাজের সূত্রে বহুকাল আগেই তারা কলকাতা ছেড়ে তারা চলে গিয়েছিল মধ্যপ্রদেশে৷ সেখানে জব্বলপুরে জন্ম হয় মল্লিকার৷ ১৯৯১সালে হিমাচলের বাসিন্দা জেপি নাড্ডার সাথে বিয়ে হয় তার৷ গতকালই ছিল তাদের বিবাহবার্ষিকী৷

সেই বাংলাতে এসেও হামলার মুখে পড়তে হল নাড্ডাকে৷ গাড়ি ভাঙচুর করা হয়,বিক্ষোভ দেখানো হয় এবং বিক্ষোভকারীদের হাতে তৃণমূলের পতাকা ছিল বলেও অভিযোগ৷  এই ঘটনার পর থেকেই কেন্দ্রে সাথে রাজ্যের তরজা শুরু হয়৷ অমিত শাহ রাজ্যপালের কাছে এই ঘটনার রিপোর্ট চেয়েও পাঠান৷ চলতি মাসে বাংলায় আসছেন অমিত শাহও৷ এমনকি কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ও হাতে পায়ে চোট পান,তার গাড়ির কাচেও ভাঙচুর চালানো হয় বলে খবর৷

তারপর থেকেই বিতর্ক ক্রমে বেড়েই চলেছে ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে৷ বিজেপি এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেবে বলেও জানায়৷