প্রায় ৯০০০ কর্মসংস্থান আইটি সেক্টরে, সিলিকন ভ্যালি গড়বে বাংলা

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে পুনরায় ক্ষমতায় থাকতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস৷ এই মুহুর্তে বঙ্গরাজনীতিতে চলছে বিভিন্ন জটিলতা,সেই সুযোগে বিরোধীপক্ষরাও বাড়াচ্ছে তাদের শক্তি৷ তাই এই পরিস্থিতিতে ২০২১—এর ভোটে এক চিলতেও জায়গাও ছাড়তে নারাজ মমতাবাহিনী৷ বাংলায় শিল্পের পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের উন্নতিতেও হাত দিতে চলেছে রাজ্য সরকার৷

তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে লগ্নি টানতে সিলিকন ভ্যালি প্রকল্প শুরু করছে রাজ্য৷ সেখানেই হতে চলেছে প্রায় ৯০০০ কর্মসংস্থান৷ সেই সকল সংস্থার তরফ থেকে লগ্নি আসছে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকারও বেশি,ইনফোকমের উব্দোধনের দিন মুখ্যমন্ত্রী তা ঘোষণা করেন৷

এবছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপে আতঙ্কিত ও বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব৷ কিন্তু তার মধ্যেও রাজ্যে তৈরী হচ্ছে কর্মসংস্থান৷ মমতা ব্যানার্জী জানিয়েছেন যে ইনফোসিস রাজ্যের প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছে এবং খুব শীঘ্রই প্রকল্পের নির্মাণ তারা জমা দেবে রাজ্যকে৷

নির্বাচনের প্রাক্কালে তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়ন নিঃসন্দেহেই ভোট বৃদ্ধির এক কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে শাসকদলের কাছে৷ তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রকে এদিন মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যে লগ্নির জন্য আমন্ত্রণ জানান৷ ২০২১থেকেই শুরু হবে এর কাজ ৷ সেই শর্তেই উইপ্রোকে জমি দেবে রাজ্য সরকার৷

কোভিড প্যাণ্ডেমিকে বিধ্বস্ত গোটা পৃথিবী৷ তবে এর মধ্যেও আসছে নতুন সুযোগ৷ এখনও ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হওয়াতে ভাইরাসকে রোজ সাথে নিয়েই চলতে হচ্ছে মানুষকে৷ এর মধ্যেও নতুন প্রজন্মের চোখে স্বপ্ন বুনতে ও তাদের পথ দেখাতে ইনফোকোমের মূল প্রতিপাদ্যই হল — “মেরুকরণে নয়,সকলকে নিয়ে উন্নয়ন”৷ তাদের মূল মোটো,”দি নেক্টট নর্ম্যাল”৷

এর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে কোভিড টিকার জন্য অপেক্ষার সাথেই পরবর্তী পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে৷স্বল্প,মাঝারি আর দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা আগে থেকেই তৈরী করে রাখতে হবে৷ বিশাল পরিমাণ ক্ষতির পর বাঁচার পদ্ধতিকে পূর্বাবৎ ঠিক করে পথ চলতে হবে৷ সেই কারণেই বিভেদ না করে,বৈষম্য না করে সকলকেই উন্নয়নের যাত্রায় সামিল করতে হবে৷ ইনফোকোমের প্রতিপাদ্যের সাথে এদিন মুখ্যমন্ত্রী সুর মিলিয়ে এমনটাই বলেন৷