টলিউড

জানা গেল অভিষেক চ্যাটার্জী মৃত্যুর আসল কারণ, দুদিন বাদে অবশেষে মিডিয়ার সামনে মুখ খুললেন অভিনেতার স্ত্রী সংযুক্তা

গত বৃহস্পতিবারই হঠাৎ সকলকে অবাক করে দিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক চ্যাটার্জী। মাত্র ৫৭ বছর বয়সেই হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঝরাতে মৃত্যু ঘটে জনপ্রিয় অভিনেতার। তারপরে পরের দিন সকালের এই দুঃসংবাদ আসে। তার মৃত্যুর খবরে গোটা টলিউড শোকোস্তব্ধ হয়ে পড়েছিল। যেন এক যুগের অবসান এর শুরু হলো। অভিষেক চ্যাটার্জী আত্মীয়-স্বজন সহকর্মীসহ অভিনেতা এমনকি ভক্তরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না যে এই অসময়ে সকলকে ছেড়ে তিনি চলে গেলেন। গোটা দুটো দিন কেটে গিয়েছে কিন্তু অভিষেকের মৃত্যুশোক এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি টলিউড।

স্বামীর মৃত্যুতে স্ত্রী সংযুক্তা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিলেন। বাকরুদ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন যার ফলে কোন কথাই বলেছিলেন না কারো সঙ্গে। তাই অভিষেক চ্যাটার্জীর হঠাৎ মৃত্যুর কারণ কারো থেকেই জানা যাচ্ছিল না এখনো। তবে অবশেষে কিছুটা সামলেছেন নিজেকে মুখ খুলেছেন মিডিয়ার সামনে, কি করে হঠাৎই অভিষেক চ্যাটার্জী এই অকালে চলে গেলেন সকলকে ছেড়ে তার কারণ জানিয়েছেন তিনি সকলকে।

মিডিয়ার করা প্রশ্নের উত্তরে সংযুক্তা দেবী জানান “মঙ্গলবার ‘খড়কুটো’-র সেটে প্রথম অসুস্থ বোধ করছিল ও। সেট থেকেই ফোন আসে আমার কাছে। তখনই আমাকে জানানো হয় আমি যেন দ্রুত অভিষেককে বাড়ি নিয়ে যাই। তখনই আমি তড়িঘড়ি সেটে পৌঁছাই। পৌঁছেই দেখি অভিষেক থর থর করে কাঁপছেন। ওর খুব সম্ভবত ফুড পয়েজেনিং হয়েছিল। তখন ওকে অ্যালার্জির ওষুধ দেওয়া হই। তাতে খানিক কাঁপুনি কমলেও বিশেষ কাজ হয়নি। স্টুডিওর বাইরে আসতেই ফের বমি শুরু হয়। একটুও দাঁড়িয়ে থাকার ক্ষমতা ছিল না। রক্তচাপও ক্রমশ কমতে থাকছিল।”

ধারাবাহিকে তার সহ-অভিনেতা সহ-অভিনেত্রীর প্রত্যেকেই তাকে বারবার বিশ্রামের জন্য অনুরোধ করেছিল। বলেছিল কাজ থেকে কিছু দিনের জন্য ছুটি নিতে, নিজের যত্ন নিতে, খেয়াল নিতে, শারীরিক অবস্থা তার ভালো ছিল না মোটেই। অভিনেত্রী তৃণা সাহাও সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে অনেক বার করে তাকে বকাঝকা করা হয়েছে কিছুতেই নিজের শরীরের খেয়াল রাখতেন না তিনি। আর সেই কথা না শোনার ফল ভোগ করতে হলো গতকাল। সকলকে কাঁদিয়ে চির নিদ্রায় চলে গেলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা।

Back to top button