টলিউড

“বাড়িতে চুমু খেতে পারতেন। বয়স তো কম হল না!” – স্বামীর সাথে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় চরম ট্রল অনিন্দ্য ওরফে সুদীপের স্ত্রী পৃথা! তবে দিলেন যোগ্য জবাবও

বাংলা টেলিভিশন জগতে অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা সুদীপ। “শ্রীময়ী” ধারাবাহিকের অনিন্দ্য চরিত্রের হাত ধরে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছেছেন অভিনেতা। এর আগেও নিজের অভিনয় দক্ষতার জন্য বেশ ভালই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন অভিনেতা নিজেই। তবে সুদীপ এর বাস্তব জীবনের স্ত্রী, পৃথার সাথে তাঁর জুটিও বেশ ভালোই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বিশেষত ইস্মার্ট জড়িতে এসেই তাঁরা আরও বেশি জনপ্রিয়তা পান। শ্রীময়ী ধারাবাহিকের পর এবার বর্তমানে সুদীপ অভিনয় করছেন স্টার জলসার আরো একটি জনপ্রিয় ধারাবাহিক গড্ডিতে।

স্বামীর জন্মদিনে বেশ ভালোবাসা জড়ানো ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে উইশ করেছিলেন স্ত্রী পৃথা। আর সেই ছবি ঘিরেই যত নোংরা মন্তব্য। পৃথা শেয়ার করা ছবিতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে দুজন দুজনের ঠোঁটে ঠোট রেখে চুম্বন করছেন। গভীর আবেশে মত্ত হয়ে তাঁদের দুই চোখ বন্ধ হয়ে এসেছে। ছবিটি শেয়ার করে পৃথা ক্যাপশনে লিখেছেন, “এই দিনটা আমার সবচেয়ে প্রিয় কারণ এদিন তুমি জন্মেছ। হ্যাপি বার্থ ডে হ্যান্ডসাম। আমি ভালোবাসি তোমায়”। এরপরই যত বিপত্তি।

এই ছবির কমেন্ট সেকশনে গিয়ে একজন নেটিজেন কমেন্ট করেছেন, “বাড়িতে চুমু খেতে পারতেন। বয়স তো কম হল না!” তবে এই কথার যোগ্য জবাব দিয়েছেন পৃথা। জবাবে পৃথা লিখেছেন, “বিশ্বাস করুন এটা আমার বাড়ি।” সাথে হাসির ইমোজি। এর আগেও স্বামী-স্ত্রী দুজনের ঘনিষ্ঠ ছবি শেয়ার করে ট্রলের সম্মুখীন হয়েছিলেন তাঁরা। যদিও নিজেদের বয়সের ফারাক নিয়েও সোশ্যাল মিডিয়া এট্রোলের সম্মুখীন হতে হয় তাঁদের। সুদীপ এর আগেও বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন। কিন্তু সেই বিয়ে টিকে থাকেনি। তারপরেই আলাপ হয় পৃথার সাথে। পৃথা পেশায় একজন ওডিসি নৃত্যশিল্পী।

সোশ্যাল মিডিয়াতে বয়সের ফারাক নিয়ে বেশ কিছু নোংরা মন্তব্য শোনার পর মুখ খুলে ছিলেন পৃথা। ইস্মার্ট জরির মঞ্চে এসে নৃত্যশিল্পী স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন কোন অল্প বয়সী পুরুষের মধ্যে তিনি নিজের মনের মানুষকে খুঁজে পাননি। সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেকেই দাবি করেছিলেন শুধুমাত্র সুদ্বীপের টাকার জন্য সে সুদীপকে বিয়ে করেছে। এখানে মঞ্চে দাঁড়িয়ে সে বিষয়েতেও নৃত্যশিল্পী স্পষ্ট জানান, “সুদীপের টাকা থাকলেও, আমি টাকার জন্য বিয়ে করিনি”।

সুতরাং সবকিছু থেকেই স্পষ্ট যে তাদের জুটি বেশ ভালই সুখে শান্তিতে বিবাহিত জীবন যাপন করছেন। ৬ বছর কেটে গিয়েছে তাঁদের বিবাহিত জীবনের। শুধু তাই নয় এই ছয় বছরে তাঁদের দুটি পুত্র সন্তান রয়েছে। ঋদ্ধি এবং বালি। বাস্তব জীবনে অনিন্দ্যের মতো নন। প্রথম স্ত্রীর সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক সুদীপের। এ বিষয়ে বেশ কুল তিনি।

Back to top button