টলিউড

‘এমনিতে হট প্যান্ট, শর্ট ড্রেস পরলেও মদন দা আসবে শুনলে পোশাক বদলে শাড়ি বা চুড়িদার বাছি’ মদন মিত্র সম্পর্কে ঘনিষ্ঠতা প্রসঙ্গে কৃষ্ণকলি বলেন, ‘শুধু নায়িকা দেখলেই ঘনিষ্ঠ কেন? আজকাল তো দুই পুরুষের‌ও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক হয়!’

কিছুদিন ধরে রাজ্য রাজনীতি উত্তাল হয়ে আছে অর্পিতা – পার্থকে নিয়ে। এর মধ্যে মদন মিত্রের সাথে টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্যের একসাথে ছবি ভাইরাল হতেই আবার মদন শ্রীতমাকে নিয়ে চর্চা শুরু হয়। সম্প্রতি শ্রীতমা ভট্টাচার্য তার একটি কুকারি শোতে মদন মিত্র গেস্ট হিসেবে এলে তাকে জড়িয়ে ধরে ছবি তোলেন আর এই ছবি নিয়েই রাজ্য রাজনীতি বর্তমানে উত্তাল হয়ে আছে। কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রের নির্বাচনী কেন্দ্রে নবনির্বাচিত কাউন্সিলর ও শ্রীতমা তাই দুজনের সম্পর্ক নিয়ে নানান রকম কথা শুরু হয়ে যায়।

মদন মিত্রের সাথে কৃষ্ণকলি খ্যাত তিয়াসা রায়ের ঘনিষ্ঠতা ও কিছু কম নয়। এই নিয়ে অভিনেত্রী কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি সপাটে উত্তর দেন, “মদন দার পাশে নায়িকা মানেই খবর। এখন তো পুরুষদের সম্পর্ক, ঘনিষ্ঠতাও মান্যতা পাচ্ছে। তাহলে দুই পুরুষ রাজনীতিবিদ পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছবি তুললে বা পরস্পরের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা থাকলে সেই নিয়ে কথা হবে না কেন?”

অভিনেত্রী আরো বলেন যে, পার্থ অর্পিতার ঘটনা দেখে সকলকে একই দাঁড়িপাল্লায় চাপিয়ে দেওয়া বোধহয় ঠিক নয়। একই সাথে মদন মিত্র কে তিনি সম্মান করেন বলেন জানিয়েছেন। এই প্রসঙ্গে তিয়াশা আরো বলেছেন যে, “ অনেক ক্ষেত্রে নিজের জন্য পাশ্চাত্যপোশাক বাছি বা শর্ট ড্রেস বা হট প্যান্ট পরি কিন্তু যখনই শুনি মদন দা আসবেন সঙ্গে সঙ্গে পোশাক নির্বাচন বদলে নিই তখন শাড়ি, লং ড্রেস বা আনারকলি আমার সাজের তালিকায় থাকে।”

ভোটের প্রচারে একসময় তিয়াসা মদন জুটি সব জায়গায় যেতেন, স্বামীর সাথে বিচ্ছেদের পিছনে এটাই কি কারণ ছিল? জিজ্ঞেস করলে কৃষ্ণকলি জানান,“ এরকম কোন কারণেই আমাদের বিচ্ছেদ হয়নি। নির্বাচনী প্রচারের সময় মদন দা সুবান কে আমার কথা বলেছিলেন। সুবান‌ ই আমায় ওর প্রচারে নিয়ে গিয়েছিল‌‌। আস্তে আস্তে চেনা জানা বাড়তে সুবান আর সবসময় সঙ্গে থাকত না।”

Back to top button