বাংলা সিরিয়াল

কান থেকে ঝর ঝর করে পড়ছে রক্ত! মিঠাইরানির এমন অবস্থা কী করে হল?

সময় খারাপ যাচ্ছে মিঠাই টিমের। কিছুদিন আগেই আমরা দেখেছি অ্যাকশন-প্যাক দৃশ্যের শ্যুট করতে গিয়ে চোট পেয়েছিল ওমি আগারওয়াল অর্থাৎ অভিনেতা জন ভট্টাচার্য। আর এবার ক্ষতবিক্ষত হয়ে রক্তাক্ত হয়েছে মিঠাই।

আমরা জানি মিঠাইয়ের চোট লাগার ঘটনা নতুন নয়। এর আগে সে পায়ে গুরুতর চোট পেয়েছিল। সেই চোট পাওয়া পা নিয়েই কোনরকমে কষ্ট করে পৌঁছাতেন স্টুডিওতে। কিন্তু এত ব্যথা পাওয়ার সত্ত্বেও সে পুরো দমে কাজ করেছেন শুটিংয়ের। অভিনয়ও তার কোনো প্রভাব পড়তে দেয়নি। আর এবার চোট পেয়েছেন কানে। তার কান দিয়ে গড় গড়িয়ে রক্ত বেরোতে দেখা গেল। কান দিয়ে রক্ত পড়ার ছবি অভিনেত্রী পোস্ট করেছেন তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে। কীভাবে এমন হল ভক্তদের আদরের তুফানমেল-এর? ইনস্টাগ্রামে ছবি আপলোড করে করে সৌমিতৃষা লিখেছেন, ‘কেয়ারলেস মানুষ হলে যা হল আর কী’।

কিভাবে তার কানে চোট লাগলো সেই কথা অভিনেত্রী এক সংবাদমাধ্যমের কাছে বিস্তারিত ভাবে জানিয়েছেন। অভিনেত্রী জানিয়েছেন যে তিনি দুই মাস আগে কান ফুটিয়েছিলেন। সেই কানের ঘা তার শুকাইনি। অভিনেত্রী ফোন ঘাঁটতে ঘাঁটতে পুসটাকে খুলতে গিয়ে কানের দুলটা এক ঝটকায় খুলে যায়, আর তার সঙ্গে রক্ত পড়তে শুরু করে’।

হঠাৎ অভিনেত্রী চিন্তায় পড়ে যান যে তার প্রিয় কানের ফুটোটি যেন না বন্ধ হয়ে যায়। সেই জন্য তিনি কানে সোনার দুল পরতে গেছিলেন। আর দুলটি এমনভাবে আটকে যায় যা বেরুচ্ছে ও না আবার ভিতরে ঢুকছেও না। হয়তো ওটা শিরায় আটকে গেছিল। অভিনেত্রীর বলেছেন, ‘উলটো টান দিচ্ছি খুলছে না। হয়ত শিরায় আটকে গিয়েছিল, এরপর ডাক্তারকেও ফোন করি। তৈরি হয়ে বার হতেও যাচ্ছিলাম। আর মনে মনে গোপালকে ডাকছিলাম, জন্মাষ্টমীর আগের দিন আমার সঙ্গে কী করছো! এর মাঝে হেঁটকা টান দিতে কানের খুলে যায়। তবে প্রচণ্ড রক্ত বার হচ্ছিল। রক্ত তো বন্ধই হচ্ছিল না। অনেকক্ষণ রক্ত চেপে রাখতে হয়েছিল’।

অভিনেত্রীর কানের এখন অবস্থা কেমন সেই কথা জানাতে গিয়ে অভিনেত্রী বলেছেন, ‘কান ফুলে আছে, প্রচণ্ড ব্যাথা। আজ থেকে অ্যান্টি-বায়োটিক খাওয়া শুরু করব। ডাক্তার বলেছেন, ফুলে থাকার কারণে ওই চ্যানেল ছোট হয়ে গেছে, তাই এই হাল’।

Back to top button