টলিউড

“মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুধু আপনাদের উন্নয়নের কথাই ভাবেন, শুধুমাত্র মানুষের জন্যই জীবনের প্রতিটা পদক্ষেপ নেন, দিদি শশা-মুড়ি খেয়ে মানুষের জন্য ভাবেন” – কোচবিহারে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের আয়োজিত বিজয়া সম্মেলনীতে গিয়ে দিদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ কৌশানি মুখোপাধ্যায়

কৌশানি মুখোপাধ্যায়, টলিউডের নিজের কাজের মাধ্যমে জায়গা করে নিচ্ছিলেন। একথা ঠিকই তবে এখন আর তেমন অভিনেত্রী কে দেখতে পাওয়া যায় না। যদিও জানা যায় না কেন। যদিও এই শিল্পী এখন ব্যস্ত রয়েছেন নিজে রাজনৈতিক জীবন নিয়ে। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের হয়ে বিভিন্ন কাজ করছেন অভিনেত্রী। সেজন্যই হয়তো নিজের দলের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে নিয়ে একেবারে ভালোবাসায় গদগদ হয়ে থাকেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি কোচবিহারে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয়েছিল বিজয়া সম্মিলনী। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কৌশানী। বিজয়া সম্মিলানীতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ খান অভিনেত্রী। বলেন, “দিদি শশা-মুড়ি খেয়ে মানুষের জন্য ভাবেন”।

আমরা সকলেই জানি ২০২১ সালেই বিধানসভা নির্বাচনের আগে অভিনেত্রী কৌশানি রাজ্যে শাসক দল তৃণমূলে যোগদান করেন। তৃণমূলের হয়ে কৃষ্ণনগর থেকে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন ভোটে। তবে বেশ কয়েক মাস নিজের সাধ্যমত চেষ্টা করেছিলেন তৃণমূলের প্রচারে। কিন্তু তারপরে ও কৃষ্ণনগর থেকে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে জিততে পারেননি কৌশানি। যদিও হেরে যাওয়ার পর আবার তাঁকে রাজনীতির মঞ্চে দেখতে পাওয়া যায়নি। বেশ কিছু কাজ করেছেন। বর্তমানে অভিনেত্রীর বেশ কিছু সিনেমার শুটিং চলছে।

যদিও আবার কৌশানিকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে রাজ্যের রাজনীতি নিয়ে প্রচার করতে। কোচবিহারে গিয়ে কৌশানী বলেন, “২০২৪ সালে হাওয়াই চটি দিল্লি যাবে। কারণ ২০২৪ সালে বাংলা আবারও নিজের মেয়েকেই চায়। ৩৬৫ দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুধু আপনাদের উন্নয়নের কথাই ভাবেন। শুধুমাত্র মানুষের জন্যই জীবনের প্রতিটা পদক্ষেপ নেন”।

এছাড়াও অভিনেত্রী আরো সংযোজন করেন, “দিদিকে আমি মুড়ি-শশা ছাড়া কিচ্ছু খেতে দেখিনি। আমরা সকলে যখন বসে বিরিয়ানি খাই তখন উনি চা-বিস্কুট খেয়ে আপনাদের কথা ভাবতে থাকেন। দিদির জন্যই আজ বাংলা এতটা এগিয়ে গিয়েছে”।

গত রবিবার কোচবিহারের কাঁকড়িবাড়িতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিজয়া সম্মেলনী আয়োজন করা হয়। সেখানেই উপস্থিত ছিলেন অভিনেত্রী। সেখানে নিজের বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্যের শাসকদলের কর্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্কে প্রশংসা করেন অভিনেত্রী। আবার কোচবিহারের মানুষের উদ্দেশ্যে ও কিছু কথা বলেন তিনি। অভিনেত্রীকে বলতে শোনা যায়, “মনে মনে যাঁরা বিজেপিকে সমর্থন করেন, তাহলে তাঁরাও তাঁদের ভুল শোধরানোর একটা সুযোগ পাবেন”।

Back to top button