বাংলা সিরিয়াল

টাকার লোভে নিজের স্ত্রী কে নিষিদ্ধ পল্লীতে বিক্রি করে এবার শ্রী ঘরে স্রোত, ‘খড়কুটো’ ধারাবাহিকে নয়া মোড়

বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে মানুষের কাছে ধারাবাহিকগুলো চাহিদা বিপুল পরিমানে বেড়েছে, বেড়েছে ধারাবাহিক গুলি দেখার প্রবণতা। আর সব ধারাবাহিক এর মধ্যে বর্তমানে রেষারেষি চলতেই থাকে। কোন ধারাবাহিক কোন ধারাবাহিক কে টপকে টিআরপি তালিকায় সবার উপরে জায়গা করে নেবে সেটার জন্য সবসময় যেন প্রতিযোগিতা চলছে। দর্শকেরা সবসময় চান তাদের প্রিয় ধারাবাহিকগুলোতে TRP তালিকায় ভালো স্থানে থাকুক। আর দর্শকদের এই পছন্দের ধারাবাহিকগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো স্টার জলসার খড়কুটো ধারাবাহিক। ধারাবাহিকে সৌজন্যে গুনগুনের জুটির পাশাপাশি বাকি চরিত্রগুলো দর্শকের কাছে অত্যন্ত প্রিয় আর তাদের মধ্যে দুটো চরিত্র হলো সাজি এবং স্রোতের চরিত্র।

ঠক জোচ্চোর বদমাশ স্রোত সাজি কে নিজের জালে ফাঁসিয়ে তাকে বিয়ে করেছে। কিন্তু এবারে বিয়ের পর আস্তে আস্তে স্রোতের আসল মুখোশ সামনে আসছে। ইতিমধ্যেই ধারাবাহিকে দেখা গিয়েছিল স্রোতের বাড়িঘর, ব্যবসা বাণিজ্য এমনকি মা-বাবা শুদ্ধ পুরো পরিবারটা ফ্রড। কয়েকদিন আগেই ধারাবাহিকে দেখানো হয়েছে গুনগুনকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে তার থেকে ৫ লক্ষ টাকা আদায় করেছে স্রোতের পরিবার। ধারাবাহিকে দেখা গিয়েছে যে বউকে অন্যের হাতে বিক্রি করে দিয়ে সেই টাকায় ফুর্তি করছে স্রোত।

এখানেই শেষ নয় জানা গিয়েছে মেয়েদের সমাজসেবার কাজ দেওয়ার নামে মেয়ে পাচার করার কাজ করে স্রোত। নিজের বউকে পর্যন্ত নিষিদ্ধ পল্লীতে বিক্রি করে দিয়েছে সে। এরপর গুনগুন থানায় অভিযোগ করে সকলকে থানায় নিয়ে যায়। আর পুলিশে অভিযোগ করার খবর পেয়ে স্রোত নিজের পুরো পরিবারকে নিয়ে বাড়িবদল করে ফেলে। আর পুলিশ ওদের বাড়িতে গিয়ে স্রোত এবং তার পরিবারকে খুঁজে না পেয়ে তার ভুয়ো অফিসে যোগাযোগ করে আর সেখান থেকেই স্রোতকে টাকার ব্যাগসহ ধরে ফেলে পুলিশ। এরপর থানায় নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধরের সঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকে এবং অবশেষে পুলিশের মার খেয়ে স্রোত সত্যিটা স্বীকার করে নেয় নিজের মুখে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Sougun lovers 💕 (@sougun_love_22)

Back to top button