বাংলা সিরিয়াল

“ক্ষতি কী আছে? আপনার তো প্রচুর টাকা তাই আবার একটা শাড়ি না হয় কিনে নেবেন” – ছোট্ট ছেলে আদি দেব নতুন কেনা শাড়ির উপরে খেলছে সেই ভিডিও পোস্ট করেও দামের দেখনদারি করলেন সুদীপা! সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে আবার শুরু কটাক্ষ

সুদীপা চ্যাটার্জি, রান্নাঘরে হাত ধরে টেলিভিশন জগতের অন্যতম তারকাদের মধ্যে একজন হয়ে উঠেছেন। একটা সময় তাঁর জনপ্রিয়তা এতটাই বেশি ছিল যে তাঁকে “রান্নাঘরের রানী” বলেই ডাকা হতো। তবে এখন সঞ্চালিকা নিজের দোষে নিজের মান সম্মান হারিয়েছেন। নিজের অতীব অহংকার গর্ব সমস্ত কিছু দেখাচ্ছেন মানুষকে। একটা সময় সকলেই টেলিভিশন খুলে বসত রান্নাঘরে শোয়ের সাথে সাথে সঞ্চালিকা সুদীপার মিষ্টি হাসি, মিষ্টি ভাবে কথা বলা আর তাঁর সুন্দর সাজগোজ দেখার জন্য। কিন্তু এখন তিনি সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে যাই পোস্ট করছেন তাতেই সমালোচনার সম্মুখীন হচ্ছেন।

কিছুদিন আগেই এক খাবার ডেলিভারি বয়কে নিয়ে সঞ্চালিকা সোশ্যাল মিডিয়াতে যা পোস্ট করেছিলেন তাতে বেশ গুরুত্ব হয়েছিলেন দর্শক। দর্শকের সেই রাগ এখনো যায়নি। এর মধ্যে আবার সঞ্চালিকা নিজের বিভিন্ন শাড়ি আর গয়নার দাম নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে অহংকার মূলক প্রচার করেন। আর এতেই আরো বিরক্ত হয়েছেন দর্শক। আসলে সঞ্চালিকা যেসব শাড়ি এবং গয়না পড়েন তা যে যথেষ্ট দামি তা দেখেই বোঝা যায়। কিন্তু তিনি সেগুলি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করে দাম নিয়ে কোন না কোন ক্যাপশন লেখেন। আবার সঞ্চালিকা নিজেই জানিয়েছিলেন তাঁর গায়ে সোনার গয়না ছাড়া অন্য কোন গয়না সহ্য হয় না। অন্য কোন গয়না পড়লে শরীরের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এসব সোশ্যাল মিডিয়াতে আসার কারণেই দর্শক বিরক্ত হয়েছেন সুদীপার ওপরে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে এতদিন শুধু চলছিল সুদীপাকে নিয়েই সমালোচনা। কিন্তু এবার শুরু হল তাঁর ছেলে আদিদেব কে নিয়ে সমালোচনা। সম্প্রতি সুদীপা সোশ্যাল মিডিয়াতে তাঁর ছেলের একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে তাঁর ছেলে দুষ্টুমি করছে মায়ের সাথে। মায়ের কিনা নতুন দামি শাড়ির উপর গিয়ে ধুপ করে শুয়ে পড়েছে। আর এমনই একটি ভিডিও পোস্ট করেন সুদীপা। সেখানেই সঞ্চালিকা ক্যাপশনে লেখেন, “ও অবশ্যই ভবিষ্যতে উজ্জ্বল হবে কিন্তু আবার নতুন কেনা গোল্ড শিমারের বিনিময়ে নয়”।

এই ক্যাপশন দেখেই ক্ষেপে যান নেটিজেনরা। তাদের কথায় ক্যাপশনে এত কিছু উল্লেখ করার মানে কি? তাহলে কি শো অফ করা হচ্ছে? এই ধরনের শাড়ি যে বেশ দামি হয় সেটা সবাই জানে কিন্তু সেটা এমন ফলাও করে বলার কি আছে। একরত্তি ছেলের দুষ্টু মিষ্টি দুষ্টুমি ভালো লেগেছে অনেকেরই। আবার অনেকেই কটাক্ষ করে বলেছেন, “ক্ষতি কী আছে? আপনার তো প্রচুর টাকা তাই আবার একটা শাড়ি না হয় কিনে নেবেন”।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Sudipa Chatterjee (@sudiparrannaghor)

Back to top button