বাংলা সিরিয়াল

অতীত ভুলে ইন্দ্র ভালবাসতে শুরু করেছে মিতুলকে! এমন সময় ইন্দ্র দরজার সামনে এসে দাঁড়ালো তার প্রথম স্ত্রী অন্তরা! এইবার কী করবে ইন্দ্র?

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো খেলনা বাড়ি। এই ধারাবাহিকে দেখা যায় কৃষ্ণনগরের মেয়ে মিতুল
মাটির পুতুল বিক্রি করে, মিতুলের একটি পালিত মেয়ে আছে তার নাম গুগলি, এই গুগলি আসলে ইন্দ্রর মেয়ে সোহাগ। ঘটনাচক্রে গুগলি মিতুল আর ইন্দ্রের সাক্ষাৎ হয় আর গুগলির জন্যই ইন্দ্র বিয়ে করে মিতুলকে।

কিন্তু কোন সময়েই সে তার প্রথম স্ত্রীর থেকে পাওয়া আঘাত ভুলতে পারিনি তাই মেয়েদের সে এক প্রকার ঘৃণা করতো, বারবার সে মিতুলকে মনে করিয়ে দিতো শুধুমাত্র গুগলির জন্যই সে বিয়েতে রাজি হয়েছে, তার জীবনে মিতুলের কোন স্থান নেই।

কিন্তু এই মিতুল আস্তে আস্তে নিজের স্বভাবগুণে ইন্দ্রর মনে নিজের জায়গা করে নেয়। সে প্রমাণ করে দেয় যে এই জগতে সবাই একরকম নয়, ব্যতিক্রম ও রয়েছে। বিপদে-আপদে সর্ব অবস্থায় সে ইন্দ্রর ঢাল হয়ে দাঁড়ায়, মিতুল কে খুব কাছ থেকে দেখে ইন্দ্রর মেয়েদের সম্পর্কে ধারণা বদল হয়।

যে ইন্দ্র একসময় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মেয়েদের সাথে আলোচনা করার বিষয়টি মাথাতেই আনতো না সেই ইন্দ্রই মিতুল কে ভালবাসতে শুরু করে এবং নিজের ভালোবাসার কথা কনফেসও করে। এই সময় মিতুল ইন্দ্রর জীবনে আসে একটা বড় সমস্যা, কিভাবে তারা দুজনে মিলে এই সমস্যাকে ওভারকাম করবে সেটাই এখন দেখার!

‘খেলনা বাড়ি’ ধারাবাহিকের নতুন প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে যে, মিতুল একটি মেয়ের ছবি এনে ইন্দ্রকে জিজ্ঞেস করে, এটি কার ছবি? তখন ইন্দ্র জানায়, এটি আমার প্রথম স্ত্রী অন্তরার ছবি। তখন মিতুল বলে, এইভাবে লুকিয়ে কেন রেখেছেন ছবিটা? তখন ইন্দ্র বলে, কারণ আমি আমার অতীত ভুলতে চাই, আপনাকে নিয়ে নতুন করে শুরু করতে চাই।

সেই সময় দেখা যায় কলি দরজার সামনে এসে দাঁড়িয়েছে, কলি বলছে, দাদাভাই বৌদি ফিরে এসেছে। এই সময় মিতুল আর ইন্দ্র বাইরে বেরিয়ে দেখে, অন্তরা ফিরে এসেছে! এইবার কোন দিকে মোড় নেবে মিতুল আর ইন্দ্রের সম্পর্ক?

Back to top button