বাংলা সিরিয়াল

‘বৌমা একঘরের’ সুস্মিতা দের মত এক পরিণতি হবে না তো ‘এক্কাদোক্কা’ আর ‘সাহেবের চিঠি’র? TRP কম থাকায় উঠছে প্রশ্ন

যে কোনো ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে টিআরপি বিষয়টা ভীষণ রকম ম্যাটার করে। ধারাবাহিকের গল্প যতই ভালো হোক বা ধারাবাহিক যতই জনপ্রিয় হোক ধারাবাহিকের টিআরপি কেমন থাকছে তার ওপর নির্ভর করে অনেক কিছু। টিআরপি কম থাকার জন্য তিন মাসের মাথায় বন্ধ হতে চলেছে স্টার জলসার একটি ধারাবাহিক ‘বৌমা এক ঘর’। জীবনের প্রথম সিরিয়াল সুপারহিট হলেও দ্বিতীয় সিরিয়ালে মুখ থুবড়ে পড়েন ‘বৌমা এক ঘরে’র নায়িকা। ঠিক এমনটাই যেন হলো প্রতীক আর সোনামনির ক্ষেত্রেও।

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ছিল ‘মোহর’ এই ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখেই ধারাবাহিকের দুই নায়ক নায়িকা প্রতীক সেন ও সোনামণি সাহাকে পুনরায় ফিরিয়ে এনেছিল চ্যানেল। তবে এইবার আর একই ধারাবাহিকে নয় পৃথক পৃথক ২ ধারাবাহিকে ফিরিয়ে আনা হয়ে ছিল দুজনকে। কিন্তু সোনামণি আর প্রতীক অভিনীত দুই ধারাবাহিক টি আর পি রেটিং এ মুখ থুবড়ে পড়ে।

সোনামণি সাহা অভিনীত এক্কাদোক্কা প্রথম সপ্তাহে ভালো ফলাফল করলেও দ্বিতীয় সপ্তাহে টি আর পি রেটিং এ ভালো ফলাফল করেনি। অন্যদিকে সাহেবের চিঠি প্রথম থেকেই টিআরপি রেটিং এ পিছিয়ে ছিল যদিও গত সপ্তাহে এবং এই সপ্তাহে টিআরপি রেটিং বেশ কিছুটা বেড়েছে। গত সপ্তাহের সাহেবের চিঠি টিআরপি রেটিং ছিল ৪.২ এইবার তা বেড়ে হয়েছে ৪.৫। টিআরপি রেটিং কিছুটা বাড়লেও এখনো স্লট লিড করতে পারেনি এই ধারাবাহিক।

তাই এই দুই ধারাবাহিক নিয়ে চিন্তা রয়েছে দর্শক মনে। কেন এই দুই ধারাবাহিকের টিআরপি বাড়ছে না তা নিয়েও শুরু হয়েছে প্রশ্ন? অনেকেই বলছেন যে সোনামণি কে কলেজ স্টুডেন্ট এর ভূমিকায় ভালো লাগে না আবার অনেকের মত প্রতিবন্ধীর চরিত্রটি প্রতীক ঠিকমতো ফুটিয়ে তুলতে পারছেন নি। এই ধারাবাহিক পিছিয়ে পড়ার কারণ অভিনয়ের দুর্বলতা নাকি গল্পের খামতি তা বোঝা না গেলেও টিআরপি রেটিং এর এই ফলাফল যে ধারাবাহিকের ভাগ্য নির্ধারণ করবে তা বলাই বাহুল্য। তাই বৌমা এক ঘর ধারাবাহিকের পর সাহেবের চিঠি আর এক্কা দোক্কা নিয়েও ভয় জমতে শুরু করেছে দর্শক মনে।

Back to top button