বাংলা সিরিয়াল

‘পাখি লাইফের স্ট্রাগল টা বোঝাতে গিয়ে আমি লেন্স পরা অবস্থাতেই কেঁদে ফেলেছিলাম ও কাঁপতে শুরু করে ছিলাম!’রাঙা বউ ধারাবাহিকে শুটিং প্রসঙ্গে কী বললেন শ্রুতি দাস?

জি বাংলায় খুব শীঘ্রই একটি ধারাবাহিক শুরু হতে চলেছে, রাত সাড়ে আটটায় এই ধারাবাহিকের নাম রাঙা বউ। এই ধারাবাহিকে্য মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন ত্রিনয়নী খ্যাত জুটি গৌরব রায়চৌধুরী এবং শ্রুতি দাস। একটা পুরনো জুটিকে আবার রিপিট করা হচ্ছে এই প্রসঙ্গে শ্রুতি দাস কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, প্রথম যখন আমি বিষয়টা শুনেছিলাম তখন গৌরবকে মেসেজ করে বলেছিলাম বুঝতে পারছিস কতটা ভরসা করা হচ্ছে আমাদেরকে, এই ভরসাটা কিন্তু আমাদেরকে রাখতে হবে।

একই সাথে শ্রুতি আরো বলেন যে, একটা পুরনো জুটিকে রিপিট করা হচ্ছে তাও আবার সেইম চ্যানেলে বিষয়টা আমার এবং গৌরবের ক্ষেত্রে ভীষণ টাফ, নিজেদের সেরাটা দিতে হবে।

পাখি চরিত্র সম্পর্কে অভিনেত্রী বলেন যে, পাখি ভীষণ ইনোসেন্ট কিন্তু তার লাইফ একটা স্ট্রাগল আছে, সেই স্ট্রাগলটা আসলে কী সেটা দেখবার জন্যই দেখতে হবে রাঙাবৌ। একই সাথে অভিনেত্রী আরো বলেন যে তিনি যেহেতু চোখে লেন্স পরেন তাই তিনি কান্নার সিনে কখনো গ্লিসারিন ব্যবহার করেন না তিনি লেন্স টা খুলে সব সময় কান্নার সিন করেন।

কিন্তু পাখির লাইফের এই স্ট্রাগেলটা এতটাই যে তিনি যখন পাখির স্ট্রাগেলটা বোঝাবার চেষ্টা করছিলেন, শ্যুট করছিলাম তখন তিনি ভুলেই যান যে তিনি লেন্স পরে আছেন,তিনি লেন্স পরা অবস্থাতেই কেঁদে ফেলেন এবং থরথর করে তিনি কাঁপতে শুরু করেন। এই সময় প্রোডাকশনের অন্যান্যরা সবাই মিলে তাকে জড়িয়ে ধরে।

তার অভিনীত আগের চরিত্র নয়নের সাথে পাখির তুলনা প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, নয়ন ইনোসেন্ট ছিল পাখি ও ইনোসেন্ট কিন্তু পাখি নয়নের মত অতটা বোকা নয়, পাখির চোখ মুখ নাক সব খোলা ও খুব বিচক্ষণ।

একই সাথে নিজের প্রেমিক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের প্রোডাকশনে ফেরা প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেছেন, “আমাকে প্রথমে জি বাংলা তরফ থেকে অফার করা হয় আর তারপরে আমি যখন জিজ্ঞেস করি কোন প্রোডাকশন তখন তারা বলে ক্রেজি আইডিয়াস। এরপর আমি যখন স্বর্ণেন্দু কে জিজ্ঞেস করি যে তোমাদের নতুন প্রজেক্টে আমাকে কাস্ট করছো?-তখন স্বর্ণেন্দু বলে এইমাত্র তোমার লুক সেট হল!”

Back to top button