বাংলা সিরিয়াল

নিজের বাপিকে নির্দোষ প্রমাণ করতে স্বেচ্ছায় চোরের অপবাদ মাথায় নেবে রাধিকা!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক এক্কাদোক্কা, এই ধারাবাহিকে দেখা যায় সপ্তর্ষি মৌলিক আর সোনামনি সাহা জুটি বেঁধে অভিনয় করছেন। এর আগে সপ্তর্ষি মৌলিক শ্রীময়ী ধারাবাহিকের ডিংকা চরিত্রটি করেছেন, সোনামণি সাহা মোহর ধারাবাহিকে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। বর্তমানে সোনামনি আর সপ্তর্ষির এই জুটি দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছে। এই সিরিয়ালে দেখানো হয় যে, রাধিকা আর পোখরাজ এর মধ্যে পারিবারিক একটি সমস্যা বহু বছর ধরে বর্তমান।

পোখরাজের পরিবারের লোক রাধিকার পরিবারের লোককে একেবারেই সহ্য করতে পারেন না। এই কারণে পোখরাজ যখন ভালোবেসে রাধিকাকে বিয়ে করে আনে তখন তার পরিবারের সবাই রাধিকার সাথে খারাপ ব্যবহার করতে শুরু করে, কিন্তু রাধিকা এই বিয়েটা করে শুধুমাত্র তার বাপিকে নির্দোষ প্রমাণ করতে। রাধিকা জানে যে পোখরাজের পরিবারের কেউ তার বাপিকে কিডনি পাচার চক্রের সাথে জড়িয়ে দিয়েছে তাই একমাত্র পোখরাজের পরিবারে গেলেই তার বাপির নির্দোষ হওয়ার প্রমাণ সে খুঁজে পাবে।

কিন্তু পোখরাজের বাড়িতে আসার পর থেকে রাধিকার সাথে সকলে খারাপ ব্যবহার করতে শুরু করে যে কারণে রাধিকার শ্বশুরবাড়ি তার কাছে কণ্টক শয্যায় পরিণত হয়। তার ননদেরা তাকে বাড়ির কাজের লোকের ব্যবহার করা শাড়ি পরতে দেয় ও বাজে রকমভাবে সাজিয়ে বৌভাতের অনুষ্ঠানে নিয়ে আসে। এমনকি তার রান্না করা খাবারে ঝাল মিশিয়ে দেয় বেশি করে, যাতে তাকে সকলের সামনে অপ্রস্তুত হতে হয়। কিন্তু এই সমস্ত পরিস্থিতিতে তার স্বামী পোখরাজ তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিল।

সম্প্রতি এক্কাদোক্কায় দেখা যাচ্ছে যে, তার বাপির নির্দোষ হওয়ার প্রমাণ খুঁজতে রাধিকা তার মেজ কাকিমার আলমারি খুঁজতে থাকে, এরপর তাকে চোর হওয়ার অপবাদ দেওয়া হতে থাকে কিন্তু রাধিকা বরাবর বলতে থাকে যে সে চুরি করেনি। এরপর পোখরাজ বলে, তাহলে তুমি প্লিজ বলো যে কেন তুমি আলমারিটা খুলেছিলে? তখন বুবলু বলে তুই বলেই দে না যে তোর লোভ হয়েছিল বলে তুই আলমারিটা খুলেছিলি?-এইবার কী বলবে রাধিকা? নিজের বাপিকে নির্দোষ প্রমাণ করতে সে কি স্বেচ্ছায় চোরের দায় মাথায় নেবে?

Back to top button